ব্লগিং থেকে কিভাবে টাকা উপার্জন করবেন?

আসসালামু আলাইকুম।। আপনার যদি একটি ব্লগ সাইট থাকে অথবা এমন কোনো কিছু শুরু করার কথা ভেবে থাকেন তাহলে মনে রাখবেন অনলাইনে এখনও আপনার টাকা উপার্জন করার সুযোগ রয়েছে। ব্লগ কে বিভিন্ন ভাবে মনিটাইজ করে উপার্জন করা যেতে পারে। কিন্তু অনেকেরই এটা না জানা থাকার কারনে ব্লগিংয়ের প্রতি অনীহা কাজ করে। 
ব্লগিং থেকে কিভাবে টাকা উপার্জন করবেন?

তাই আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি কিভাবে আপনি সবচেয়ে সহজ ও সেরা পদ্ধতি গুলো অবলম্বন করে ব্লগিং এর মাধ্যমে টাকা উপার্জন করতে পারবেন। তাহলে চলুন শুরু করা যাক। বন্ধুরা সর্ব প্রথম আমাদের কাছে যে মাধ্যম টা রয়েছে সেটি হচ্ছে বিজ্ঞাপন। আপনি আপনার ব্লগিং ওয়েবসাইট কে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে মনিটাইজ করে কিন্তু টাকা আয় করতে পারবেন।

বিজ্ঞাপন দেখানোর মাধ্যমে ব্লগিং থেকে কিভাবে টাকা উপার্জন করবেন?

যখন আপনি কোনো বিষয়ে ব্লগিং করবেন আপনার ওয়েবসাইটে বা ব্লগ পোস্টে বিভিন্ন Article লেখা বা পোস্ট করা থাকবে তখন আপনি আপনার ওয়েবসাইট টাকে গুগল এডসেন্সের এডভারটাইজিং পলিছি মেনে মনিটাইজ করে তারপর সেখানে আপনার যখন ভিজিটরস রা প্রবেশ করবে তখন তাদের কাছে এড প্রদর্শন এর মাধ্যমে আপনাকে অর্থ প্রদান করা হবে। এবং এটা বিশ্বের সবচাইতে জনপ্রিয় একটি ব্লগিং। 

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে ব্লগিং থেকে কিভাবে টাকা উপার্জন করবেন?

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে নিশ্চয়ই আপনারা জানেন।অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হলো বিভিন্ন ই কমার্স সাইটের প্রোডাক্ট গুলোর লিংক আপনি কপি করে যদি আপনার ব্লগিং ওয়েবসাইট এর যেকোনো article এর মধ্য কোনো সাজেশন প্রোডাক্ট হিসেবে দিয়ে দেন এবং সেই লিংকে ক্লিক করে যদি কোনো পন্য কোনো ক্রেতা ক্রয় করে তাহলে সেক্ষেত্রে সেখানকার একটা নির্দিষ্ট পরিমানে কমিশন আপনি পেয়ে যাবেন।

যেমন: আমরা ধরে নিচ্ছি আপনি বিভিন্ন ট্রাবল নিয়ে article লিখেন। এখন আপনি কোথাও সাতার নিয়ে বা সুইমিং পুলে সাতার কাটা নিয়ে একটা ব্লগ article লিখছেন।সো তখন কিন্তু আপনি সাতার কাটার যে সমস্ত সরঞ্জাম গুলো আছে সেগুলোর একটা অ্যাফিলিয়েট প্রোডাক্ট লিংক কিন্তু সেখানে এড করে দিতে পারেন। যে আপনারা চাইলে এই চশমা টা বা এই সুইমিং জ্যাকেট টা কিনে নিতে পারেন। এই খানে ক্লিক করে।

এখানে ক্লিক করে যদি কোনো দর্শক সেই পন্য টা কিনে তাহলে সেখান থেকে আপনি একটা নির্দিষ্ট পরিমানে কমিশন পাবেন। আর যখন আপনার ওয়েবসাইট এর ভিজিটরস অনেক বেশি থাকবে তখন এই কমিশন গুলো ধীরে ধীরে একটা বিশাল অঙ্কের একটা earning হয়ে যাবে। 

সরাসরি বা ডিজিটাল মাধ্যমে পন্য সেল করে উপার্জন করা

আপনার যদি ব্লগার সাইটে আপনি কোনো ধরনের কোনো নিজস্ব পন্য অথবা থার্ড পার্টিতে নিয়ে আসা কোনো পন্য বিক্রি করতে চান সেটা ডিজিটাল মাধ্যমে হক বা অনলাইনে অর্ডার করে ফিজিকালি সেল করা হক না কেন আপনি কিন্তু এই পদ্ধতি অবলম্বন করেও টাকা আয় করতে পারবেন। আপনি চাইলে অনলাইনে পেমেন্ট সিস্টেম ও সেখানে চালু করতে পারেন।

এতে করে আপনি আপনার পন্য মার্কেটিং করেও আপনি আপ্নার ব্লগার সাইটকে মনিটাইজ করে সেখান থেকে আপনার অর্ধ আয় করতে পারবেন এবং আপনার প্রোডাক্ট সেল করতে পারবেন।।আপনার কোম্পানি কেও কিন্তু পরিচিতি দিতে পারবেন।  

সাবস্ক্রিপশন এর মাধ্যমে ব্লগিং থেকে কিভাবে টাকা উপার্জন করবেন?

সাবস্ক্রিপশন এর সাথে হয়তো আমরা অনেকেই পরিচিত নেই। সাবস্ক্রিপশন হচ্ছে ধরে নিন আমরা বাংলাদেশে অনেকে কিন্তু পত্রিকা পড়ি। তাইনা? যেমন প্রথম আলো,ডেইলি স্টার এরকম আরো অনেক কিছু। সো এই পত্রিকাগুলোর কিন্তু বিভিন্ন সাবস্ক্রিপশন পেমেন্ট থাকে। যেমন অবেকে কিন্তু প্রিমিয়াম যে ব্লগিং আছে, প্রিমিয়াম আইডি আছে। 

আইডি ব্যবহার করে তাদের ওয়েবসাইট আছে সেগুলো পড়ে। আবার কিছু কিছু সাইট আছে যেই সাইটে আপনি কিন্তু যদি article পড়তে চান তাহলে কিন্তু প্রিমিয়াম আইডি দিয়ে সেখানে article পড়তে হবে। অথবা সাবস্ক্রিপশন কিনে নিতে হবে যার বিনিময়ে আপনাকে মাসে মাসে কিন্তু টাকা প্রদান করতে হবে। ঠিক একই ভাবে আপনার সাইটে যদি আপনি এমন কোনো কিছু রাখেন যেগুলো পাওয়ার জন্য অডিয়েন্সরা বা ভিজিটরস রা সাবস্ক্রিপশন কিনে মাসে মাসে টাকা প্রদানের মাধ্যমে তাদের ভেলু নিতে হবে। তাহলে সেক্ষেত্রে কিন্তু আপনি এই সাবস্ক্রিপশন সিস্টেমের মাধ্যমেও প্রতি মাসে ভালো আয় করতে পারবেন। 

কোচিং এর মাধ্যমে ব্লগিং থেকে কিভাবে টাকা উপার্জন করবেন?

আপনারা সবাই জানেন বাংলাদেশে এখন অনেক অনেক অনলাইন প্ল্যাটফর্ম অনলাইনে কোচিং করিয়ে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে । যেমন আপনি যেকোনো বিষয়ে যদি এক্সপার্ট হন, তাহলে সেক্ষেত্রে ওই বিষয় এর উপর আপনি যদি অন্যের সাথে শেয়ার করে সেটাকে বিক্রয় এর মাধ্যমে টাকা উপার্জন করতে চান কোচিং সিস্টেমে তাহলেও কিন্তু আপনি আপনার ব্লগিং ওয়েবসাইট কে ব্যবহার করে সেটার মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন । 

আপনি চাইলে সেটা ভিডিও আকারে কোর্স লিখে সেটাকে সেল করার জন্য একটা নির্দিষ্ট দাম দিয়ে সেখানে আপনি পেমেন্ট গেট ওয়ে বসিয়ে কিন্তু সেখান থেকে আপনি ভালো পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন।আপনি হয়তো দেখতে পারছেন এই মাধ্যম ব্যবহার করে অনেকে উপকৃত হচ্ছে। সুতরাং আপনি এটা কেন হাত ছাড়া করবেন? সো এবার চলে যাচ্ছি আমরা একবারে ফাইনালে এবং সেটা হচ্ছে স্পনসরশিপ । 

যখন আপনার ওয়েবসাইট টা অনেক বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠবে অথবা আপনার ব্লগিং গুলো অনেক বেশি জনপ্রিয় হয়ে যাবে এবং সবাই আপনাকে চিনবে জানবে তখন আপনি কিন্তু বিভিন্ন কোম্পানি থেকে স্পনসরশিপ পেতে পাড়েন। তারা আপনাকে বলতে পারে যে আপনার article এ আমাদের কোম্পানি সম্পর্কে এই বিষয় টা লিখে দিবেন অথবা আপনার articleআরতিচলেএ আমাদের কোম্পানির একটা এড দিয়ে দিবেন।

আর জানুনঃ
সেটা হতে পারে মোশন এড বা স্টিকার এড হতে পারে অথবা সেটা যেটাই হক না কেন। এরকম কন্টাক্ট করে কিন্তু আপনি বিভিন্ন স্পনসার কোম্পানির মাধ্যমে আপনার ব্লগিং ওয়েবসাইট কে মনিটাইজ করে টাকা আয় করতে পারবেন। সো আশা করছি আপনারা বুঝতেই পারছেন যে আপনার যদি একটা ওয়েবসাইট থাকে তাহলে সেটার মাধ্যমে বিভিন্ন ভাবে কিন্তু আপনি টাকা আয় করতে পারবেন। সুতরাং আপনার যদি ব্লগার সাইট থাকে তাহলে আজ থেকেই এই ৬ টা মাধ্যম অবলম্বন করে টাকা আয় করা শুরু করে দিন। সো আজ এই পর্যন্তই।। ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url