২০২৩-২৪ অর্থবছরে ৬টি শর্তে কর নিবন্ধন বাতিল করার নিয়ম

নতুন আয়কর আইন  ২০২৩ এবং ২০২৪ অর্থ বছরে একটি আইন পাস করা হয়েছে । যে আইন এর জন্য আমরা সবাই অপেক্ষায় ছিলাম। সেই আইনটি হচ্ছে কোনো প্রয়োজনে আমরা যে টিন সার্টিফিকেট করেছিলাম সেটা কিভবে বাতিল করা যাবে। কোন কোন শর্তে বাতিল করা যাবে সেই প্রক্ষিতে  একটি আইন পাশ করা হয়েছে।

২০২৩-২৪ অর্থবছরে ৬টি শর্তে কর নিবন্ধন বাতিল করার নিয়ম

সেই আইনে বলা হয়েছে যে, ৬ টি শর্ত সাপেক্ষে আপনি চাইলে নিবন্ধনটি বাতিল করতে পারবেন। অর্থাৎ আপনি যদি ৬টি শর্তের মধ্যে পরেন তাইলে আপনি চাইলে আপনার যে টিন সার্টিফিকেট সেটি বাতিল করার জন্য আবেদন করতে পারবেন। 

আবেদন করার পরেই আপনার টিন সার্টিফিকেটটি বাতিল হয়ে যাবে না। কর অফিসাররা ৪টি বিষয় বিবেচনা করে সার্টিফিকেটটি বাতিল করতে পারবেন। 

তো চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই ৬টি শর্ত কি এবং কর অফিসাররা যে ৪টি বিষয় বিবেচনা করবেন সেগুলো কী কী?

 যে ৬ শর্তে কর নিবন্ধন বাতিলের আবেদন করা যাবেঃ

  1. যেসব কর দাতার রিটার্ন দাখিলের বাধ্যবাধকতা নেই।
  2. মৃত্যু, অবসায়ন, অবলুপ্তি বা অনুরূপ কোনো কারণে অস্তিত্বহীন হয়ে  যান।
  3. স্থায়ীভাবে বাংলাদেশ ত্যাগ করলে এবং বাংলাদেশে আয় করার কোনো কর্মকান্ড না থাকলে।
  4. ডুপ্লিকেট নিবন্ধন বা ভুল নিবন্ধন পেলে। 
  5. আইনি মর্যাদা পরিবর্তন করলে এবং 
  6. অন্য কোনো আইনানুগ কারণে
কর নিবন্ধন বাতিলের আবেদন করার ‍নিয়ম 
অনেকেই আছেন যারা সঞ্চয়পত্র বা অন্যান্য কাজে বা বিপদে পড়ে অন্য কোনো কাজ করার জন্য কর নিবন্ধন করেছেন। কিন্তু তাদের আয়কর দেওয়ার মতো আয় তাদের নেই। তারপরেও আয় কর নিবন্ধন করেছিলেন অনলাইনে। কিন্তু আপনি এখন মনে করতেছেন এটার আপনার দরকার নেই বাতিল করতে হবে। তো কিভাবে বাতিল করতে হয় সেই প্রসেসটাই আমি এখন আপনাদের দেখাবো। 

অনলাইনের মাধ্যমে ঘরে বসেই খুব সহজেই টিন সার্টিফিকেট করা গেলেও এটা কিন্তু অনলাইনের মাধ্যমে বাতিল করা যায় না। আপনি বাতিল করতে চাইলে আপনার টিন সার্টিফিকেট এ দেখবেন একটা সার্কেল রয়েছে বা জুন রয়েছে। সেই সার্কেল বা জুনে আপনাকে সশরীরে উপস্থিত হতে হবে। উপস্থিত হয়ে আপনার এই টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে হবে। 

টিন সার্টিফিকেটটি বাতিল করার জন্য আপনাকে যেসব কাগজ নিয়ে যাইতে হবে সেগুলো হলো ঃ
  1. টিন সার্টিফিকেট।
  2. আপনার এন আইডি কার্ড।
  3. আপনার এক কপি পাসপোর্ট সাইজ এর একটা ছবি।
এই তিনটি কাগজ নিয়ে যাবেন আর অবশ্যই একটি আবেদন পত্র নিয়ে যাবেন। সেই আবেদন পত্রে আপনাকে অবশ্যই উল্লেখ হবে যে আপনি  কি কারণে আপনার এই টিন সার্টিফিকেটটি বাতিল করতে চাচ্ছেন। 

সুতরাং প্রথমে  আপনাকে এই  বিষয় পরিষ্কার করতে হবে। আর এর আগে আপনাকে যেটা করতে হবে। সেটা হলো আপনাকে জিরো রিটার্ন জমা দিতে হবে পাশাপাশি তিন বছর । তিন বছর পাশাপাশি জিরো রিটার্ন জমা না দিলে কিন্তু আপনি এই টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে পারবেন না। 

জিরো রিটার্ন জমা দেওয়া কোনো কঠিন কাজ না। আপনি অনলাইনের মাধ্যমে খুব সহজেই ঘরে বসেই জিরো রিটার্ন জমা দিতে পারবেন। তিন বছর জিরো রিটার্ন জমা দেওয়ার পর আপনি যখন এই আবেদন পত্র নিয়ে হাজির হবেন। তখন অবশ্যই আবেদন পত্রে আপনি বলবেন যে আমি এই কারণে করেছিলাম আর এইটা এখন আমার দরকার নেই। পাশাপাশি আমি তিন বছর জিরো রিটার্ন জমা দিয়েছি এই কারণে আমি বাতিল করতে চাই। 


এই কাজগুলো করে আপনি আবেদন পত্র কর অফিসে জমা দিয়ে চলে আসবেন। আপনার কাজ এখানেই শেষ । তারপর অফিস হয়ত কিছু দিন সময় নিবে এটা যাচাই করার জন্য । যাচাই করার পর তারা যদি দেখে সবকিছু ঠিক আছে তাহলে তারা এটা বাতিল করে দিবে। হয়তবা আপনি একটা নোটিফিকেশন পাবেন। 
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url