ফেসবুক পেজে যেই ভুল গুলো করা যাবেনা

ফেসবুক পেজে এই ভুলগুলো কখনোই নয়। প্রিয় পাঠক বর্তমান সময়ের এই ডিজিটাল যুগে এসে প্রত্যেকটা ব্র্যান্ড প্রত্যেকটা প্রতিষ্ঠান এবং ইন্ডিভিজুয়াল এর জন্য একটি ফেসবুক পেজ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু কিছু কমন মিসটেক আমাদের ফেসবুক পেজের রিচ এংগেজমেন্ট এবং প্রেজেন্ট কে অনায়াসে ধ্বংস করতে পারে। তবে চলুন সেই মিসটেকগুলো জেনে নেওয়া যাক।

ফেসবুক পেজে যেই ভুল গুলো করা যাবেনা

ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায়।

  • প্রোফাইল গোছাতে মনোযোগ দেন।
  • অন্য পেজ ফলো করুন।
  • ভিজুয়াল মিডিয়ার সাহায্য নিন।
  • ফেসবুক পেজের প্রচারের জন্য গ্রুপ বানান।
  • লাইভে অংশগ্রহণ করুন।
  • পোস্ট কিংবা ডেসক্রিপসন লেখায় দক্ষ হতে হবে।
  • ভুল তথ্য ভুলেও দেওয়া যাবেনা।
  • পোস্ট করার সময় ঠিক রাখতে হবে।
  • ফেসবুক পিক্সেলের ব্যবহার করুন।
  • বেশি বেশি বুস্ট করা যাবেনা।
  • দক্ষদের পরামর্শ নিন।
  • নিজের একটা টিম বানান।
এই নিয়ম গুলো আপনারা যদি ফলো করেন তাহলে আপনার সফল হতে পারবেন ইনশাআল্লাহ।

ফেসবুক এ যে ভুলগুলো করা যাবেনা

ফেসবুক পেজে এই ভুলগুলো কখনোই নয়। প্রিয় পাঠক বর্তমান সময়ের এই ডিজিটাল যুগে এসে প্রত্যেকটা ব্র্যান্ড প্রত্যেকটা প্রতিষ্ঠান এবং ইন্ডিভিজুয়াল এর জন্য একটি ফেসবুক পেজ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু কিছু কমন মিসটেক আমাদের ফেসবুক পেজের রিচ এংগেজমেন্ট এবং প্রেজেন্ট কে অনায়াসে ধ্বংস করতে পারে। তবে চলুন সেই মিসটেকগুলো জেনে নেওয়া যাক।

01. Neglecting your pages cover photo.

সর্বপ্রথম যেটা রয়েছে সেটা হচ্ছে Neglecting your pages cover photo.আপনার ফেসবুক পেজের কভার ফটো কে কখনোই অবহেলার চোখে দেখবেন না। কেননা মনে রাখবেন আপনার ফেসবুক পেজের যে চেহারা বা ফেস আছে সেটা কিন্তু আপনার পেজের কভার ফটো। আপনি হয়তোবা অনেক সুন্দর একটি প্রোফাইল পিকচার ডিজাইন করে সুন্দর করে সেট করেছেন।

কিন্তু আপনার পেজের যে কভার ফটোটা রয়েছে সেটা কিন্তু আপনার ব্র্যান্ড, আপনার ইমেজকে আসলে রিপ্রেজেন্ট করে দর্শকের সামনে। এবং ভিউয়ারদের বা আপনার পেজকে যারা ফলো করছে তাদের সামনে। আপনার পেজকে ফলো করার জন্য সেটা অবশ্যই যেন well optimize for both of mobile device and computer device হয় সেটা আপনাকে মনে রাখতে হবে।

এমন একটা কভার ফটো আপনি ডিজাইন করবেন। মোবাইল এর মাধ্যমে কিন্তু এখন করা যায়। এর জন্য আপনাকে কম্পিউটার বা গ্রাফিক ডিজাইনার হতে হবে না। ঠিক আছে।এমন একটা কভার পেজ আপনি ডিজাইন করবেন যেটা যেন অবশ্যই আপনার মোবাইল ফোন থেকে এবং কম্পিউটার থেকে অয়েল ভিউড হয়। এবং আপনার ব্র‍্যান্ড ইমেজকে যাতে ফুটিয়ে তোলে।

02. Positing too frequently or too infrequently.

আপনি যখন আপনার ফেসবুক পেজে কোন পোস্ট করছেন তখন হয়তোবা অনেক বেশি পোস্ট করছেন। একদিনে ৪/৫ টা করে আবার ২/৩ দিন বা এক সপ্তাহ কোনো খবর নাই আবার আপনি হয়তো বা ১ সপ্তাহ পর এসে আবার পোস্ট করছেন।তার মানে হচ্ছে posting too frequently.তার মানে হচ্ছে আপনি ঘনঘন পোস্ট করছেন। অথবা posting too infrequently.মানে হচ্ছে আপনি অনেক লেজি হয়ে মাঝে মাঝে পোস্ট করছেন।এমনটা করা যাবে না।

এটাকে ব্যালেন্স করতে হবে। আপনার দর্শক যাতে বিরক্ত না হয়ে যায় সেই দিক তাকে খেয়াল রাখতে হবে এবং ফেসবুক পেজে পোস্ট করতে হবে। তবে পোস্ট করার ক্ষেত্রে অবশ্যই একটা জিনিস আপনি মাথায় রাখবেন আপনি যতো বেশি পোস্ট করবেন ততো বেশি রিচ পাবেন ঠিকই কিন্তু অবশ্যই তার চাইতেও কিন্তু কোয়ান্টিটি আপনি কতো করছেন পোস্ট এর দিক থেকে এর চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে কোয়ালিটি।

এর মানে হচ্ছে আপনি যদি ১০ টা পোস্ট এর জায়গায় ৫ টা পোস্ট কোয়ালিটি মেইনটেইন করে করে করেন তাহলে আপনার সফলতা অনেকটা বেড়ে যাবে।সো, অবশ্যই আপনি এই জিনিস টা খেয়াল রাখবেন।

03.Ignoring comments and messages.

৩ নং এ রয়েছে Ignoring comments and messages.আমরা সবাই হয়তোবা ফেসবুক পেজে প্রচুর পোস্ট করি, ভিডিওস আপলোড করি। কিন্তু আমাদের যারা দর্শক আছে তাদের যে কমেন্টগুলো আসছে বা মেসেজ আসছে সেগুলো কে আমরা রেসপন্স করিনামেটা প্রমাণ করে যে আপনি আপনার অডিয়েন্স দের কেয়ার করেন না।এটা কিন্তু একটা খুবই মারাত্মক বিষয়।

তাই আপনার ফলোয়ারস দের কমেন্ট এর রিপ্লাই দিবেন ঘন ঘন। তাহলে এতে করে আপনার সাথে তাদের সম্পর্ক অনেক ভালো হবে।

04. Not utilizing Facebook analytics.

৪ নং এ রয়েছে Not utilizing Facebook analytics. Facebook পেজেও যদি আপনি আপনার অডিয়েন্সের অ্যাটেনশন পেতে চান তাহলে কিন্তু আপনাকে utilize করতে হবে আপনার analytics কে। তার মানে হচ্ছে আপনার audience দের ডেটা সম্পর্কে খবর রাখা। তাদের বয়স কতো,তারা কোথা থেকে দেখছে,তাদের পছন্দ কি? কোন ধরনের পোস্ট তারা পছন্দ করছে? কি কি তাদের পছন্দ না,, এই বিষয় গুলো আপনি জেনে রাখার চেষ্টা করবেন।এগুলো কিন্তু আপনার পেজের রিচ বাড়াতে অনেক সাহায্য করবে।

05. Overlooking visual content.

৫ নং এ রয়েছে Overlooking visual content. ফেসবুক প্ল্যাটফর্ম টাই হচ্ছে একটা visual platform. যেখানে মানুষ ঘন্টার পর ঘন্টা স্ক্রল করতেই থাকে। হয়তো বা আপনি ছবি দেখছেন অথবা আপনি ভিউস দেখছেন অথবা ইনফরগ্রাফিক্স দেখছেন এই যে বিষয় গুলো প্রত্যেকটা বিষয় যেন আই কেচি হয়। আপনি এমন কিছু পোস্ট করুন যেটা মানুষ অন্তত see more এ গিয়ে আপনার পোস্ট এর অর্ধেকটা পর্যন্ত পড়ে। আবার হয়তো আপনি এমন কোনো ভিডিও আপলোড করছেন সেটা লোকজন ১ মিনিট সময় খরচ করে দেখছে এবং তারা কিন্তু ফেসবুক এর অ্যালগরিদম কে মেসেজ দিচ্ছে আপনার কন্টেট কিন্তু বেস্ট। 

এটা যখন ফেসবুক আসলে বুঝতে পারবে তখন কিন্তু আপনার কন্টেটকে আরো বেশি মানুষের কাছে পৌছে দিবে। আপনার অনেক বেশি পরিমাণ আমাকে কমেন্ট করেন ভাইয়া আমার ফেসবুক পেজ এর রিচ একদম ডাউন করণীয় কি। তাদের বলি ভাই করণীয় একটাই। ইনগেজিং/ পোস্ট/ কন্টেট / ইমেজ/ ভিডিওস, রিলস আপলোড করেন। তাহলে আপনি ফেসবুক পেজে সফলতা পেতে পারেন।

06. Forgetting to include a call to action.

সর্বশেষে আপনার প্রত্যেকটা পোস্ট, প্রত্যেকটা রিলস, এখানে ক্লিয়ার করা যে আমাদের পোস্টটি বা আমাদের ভিডিও বা আমাদের রিলস ভালো লাগলে পরবর্তী পোস্ট পেতে আমাদের পোস্টটিকে লাইক দিন বা শেয়ার করে দিন। এবং আমাদের ফেসবুক পেজে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। এই পোস্ট সম্পর্কে আপনাদের মতামত কি। আপনি যখন তাদের কে প্রশ্ন করবেন তখন তারা কিন্তু আপনাকে উত্তর দিবে। মোটকথা আপনার দর্শক কে দিয়ে আপনি যেটাই করাতে পারেন সেটাই আপনকে আপনার পেজ এর রিলস বাড়াতে সাহায্য করবে।

উপসংহারঃ
অশা করি আপনার ফেসবুক যে কমন ভুলগুলো করা যাবেনা সেটা বুঝতে পারছেন। বর্তমান সময়ে ফেসবুক একটি জনপ্রিয় প্লাটফর্ম হয়ে দাড়িয়েছে তাই আপনার আপনার পেজকে ভালো ভাবে গ্রো করতে পারলে। আপনি এটা দ্বারা স্টাবলিস হতে পারবেন ।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url