২০২৩ সালের ৫ টি অসাধারণ এন্ড্রয়েড ট্রিকস

আজকে আমি আপনাদেরকে এন্ড্রয়েড ফোনের এমন পাঁচটি অসাধারণ ট্রিকস দেখাবো যেগুলো আপনাদের ডেইলি লাইফে অনেক অনেক বেশি উপকার করবে। চলুন কথা না বাড়িয়ে সেই ট্রিকসগুলো নিয়ে আলোচনা করা যাক ।
২০২৩ সালের ৫ টি অসাধারণ এন্ড্রয়েড ট্রিকস

পাঁচটি অসাধারণ এন্ড্রয়েড ট্রিকসঃ
ট্রিকস নম্বর নাম্বার ওয়ানঃ 
ট্রিকস নাম্বার ওয়ানটা তাদের জন্য বেশি কার্যকরী যারা মোবাইলে এমবি বা ডাটা কিনে ফেসবুকিং ইউটিউবিং বা নেট চালান।। কিভাবে চলুন আপনাদেরকে বলি যখন আপনি ১ জিবির একটা ডাটা প্যাকেজ কিনলেন তখন সাথে সাথে আপনি দেখলেন এখানে ২০০ বা ৩০০ এমবি ডাটা in state খরচ হয়ে গেছে কিন্তু আপনি ফেসবুক কিংবা ইউটিউবিং কোন টাই করেননি। 

মূলত আপনার ফোনের ব্যাকগ্রাউন্ডে যে অ্যাপস গুলো রয়েছে। সেখান থেকে তারা কিন্তু প্রচুর পরিমাণে ডাটা কেটে নিয়ে যায়। অর্থাৎ ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা থেকে কিন্তু আপনার এই ডাটাগুলো খরচ হয়ে যায়। কিভাবে সেটা বন্ধ করবেন চলুন আপনাদেরকে দেখায় :- শুরুতেই আপনারা চলে যাবেন আপনাদের ফোন থেকে সেটিংসে
৫ টি অসাধারণ এন্ড্রয়েড ট্রিকস


সেটিংসে আসার পর নিচের দিক  দেখতে পারবেন কানেক্টিং এন্ড শেয়ারিং নামে একটা অপশন রয়েছে। এখানে ক্লিক করবেন, 
২০২৩ সালের ৫ টি এন্ড্রয়েড ট্রিকস


এখানে ক্লিক করার পর,
৫ টি এন্ড্রয়েড ট্রিকস

আপনি দেখতে পাচ্ছেন ডাটা ইউজেস নামে একটা অপশন রয়েছে, এখানে ক্লিক করবেন। এখানে ক্লিক করার পর, 
৫ টি অসাধারণ এন্ড্রয়েড ট্রিকস

আপনার সামনে দেখেন সমস্ত অ্যাপ গুলো শো করছে।সো একটা অ্যাপস এর উপর ক্লিক করবেন। মানে একটা একটা করে কাজটা করতে হবে। ক্লিক করার পর, 
২০২৩ সালের ৫ টি এন্ড্রয়েড ট্রিকস

নিচের দিকে দেখেন ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা নামে একটা অপশন রয়েছে। দেখেন এটা কিন্তু চালু আছে। জাস্ট এটা কি আপনি অফ করে দিবেন। অফ করে দিলে কিন্তু কাজ শেষ আবার অনেক ফোনে কিন্তু এখানে ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা নামে একটা অপশন থাকবে এটা বন্ধ করে দিলে সমস্ত অ্যাপসগুলো একই সাথে কাজ করবে। এভাবে সমস্ত অ্যাপসগুলোর ব্যাকগ্রাউন্ড ডাটা অফ করে দিতে হবে। তাহলে আপনি যেটুকু ডাটা কিনবেন, আপনি যখন যেই এপ্সটা চালাবেন সেটাতে কিন্তু ডাটা খরচ হবে বাকি এপপ্স গোলাতে কিন্তু ডাটা খরচ হবে না।। এভাবে কিন্তু অহেতুক ডাটা খরচের হাত থেকে আপনি বেঁচে যাবেন।

নাম্বার টুঃ

অমরা যখন ইউটিউবে কোন ভিডিও দেখি তখন সেই ভিডিওটা কিন্তু কাস্টমাইজ করে আমরা আমাদের নিজেদের মতো ফোনের কোন অংশে রাখতে পারি না। বাট এক্ষেত্রে যদি আপনি আপনার ফোনে যদি
৫ টি এন্ড্রয়েড ট্রিকস


(ভি এল সি) যে প্লেয়ারটা রয়েছে ওইটা ইনস্টল করে দেন,আর ইন্সটল করার পর।  আপনি যদি.
২০২৩ সালের অসাধারণ এন্ড্রয়েড ট্রিকস


এখানে শেয়ার বাটনে ক্লিক দেন তাহলে এখানে(ভিএলসি) প্লেয়ারটা আপনি দেখতে পারবেন.। অথবা more এ গেলেও আপনি খুঁজে পাবেন। তারপর, 
২০২৩ সালের এন্ড্রয়েড ট্রিকস


আপনি এটার উপর যদি ক্লিক দেন তাহলে দেখেন, 

আপনার এই ভিডিওটা কিন্তু ছোট্ট করে  Screen এ চলে আসলো এখন আপনি ইচ্ছেমতো এটাকে যেখানে খুশি সেখানে রেখে আপনি কিন্তু অন্য কাজ গুলি করতে পারবেন। এই ট্রিটটা অনেকেরই অনেক বেশি কাজে লাগবে। 

ট্রিকস নম্বর ৩: আপনি যদি চান আপনার স্মার্টফোন এর কোন ফোল্ডারকে আপনি হাইড করে রাখবেন কোন প্রকার আলাদা অ্যাপস ছাড়াই,, তাহলে সেটাও কিন্তু সম্ভব। কিভাবে চলুন আপনাদেরকে দেখাচ্ছি। শুরুতেই আপনার ফাইল ম্যানেজার এ চলে যাবেন । 

ফাইল ম্যানেজার এ আসার পর এখানে ফাইলের যে আইকনটা রয়েছে ওখানে জাস্ট ক্লিক করবেন। ক্লিক করার পর এখন আপনি যে ফোল্ডারটাকে হাইড করবেন জাস্ট ওই ফোল্ডারটা এখান থেকে সিলেক্ট করবেন।। ধরেন এখানে ফন্ট নামে যে এই ফোল্ডারটা রয়েছে ওটাকে আমি হাইড করব সো প্রথমে আমি ওই ফোল্ডারটাকে সিলেক্ট করব সিলেক্ট করার পর নিচের দিকে more নামে একটা অপশন থাকবে ওখানে ক্লিক করতে হবে তারপর রিনেমে ক্লিক করব।রিনেমে ক্লিক করার পর আমি জাস্ট কাছার তাকে একদম সামনের দিকে নিয়ে আসবো এখন হচ্ছে জাস্ট একটা ডট দিয়ে দিব আর কিচ্ছু না। 

একটা ডট দিয়ে তারপর হচ্ছে এখান থেকে টিক চিহ্নটা তুলে দিব। তুলে দেওয়ার পর এখন ওকে করে দিব। এখন দেখেন এই ফোল্ডারটা কিন্তু এখানে আর নেই। চলে গিয়েছে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে এইটা যদি এখানে না থাকে তাহলে এটা কি আমি কোথায় খুঁজে পাব? হ্যাঁ এটাকে কিন্তু আপনি চাইলে দেখতে পারবেন দেখার জন্য বাম পাশের চিহ্ন টাতে ক্লিক করে ওখান থেকে সেটিংসে যাবেন।। সেটিংসে আসার পর এখান থেকে শো হিডেন ফাইলস এ ক্লিক করবেন। ক্লিক করে ওটাকে জাস্ট অন করে দিবেন। ফোন করে দেওয়ার পর ওই ফোল্ডারটাকে কিন্তু এখন আপনি এখানে দেখতে পারবেন।। এই হল ট্রিক্স। 

ট্রিকস নম্বর ৪: ধরেন আপনি ক্রোম ব্রাউজার বা অন্য কোন ব্রাউজারে গিয়ে কোন কিছু সার্চ করলেন অথবা আপনার সিক্রেট মোড ওয়েবসাইট আপনি ভিজিট করলেন। বাট পরবর্তীতে আপনার ফোনটা কেউ হাতে নিলে কিন্তু বুঝতে পারবে যে আপনি কোন কোন সাইট ভিজিট করেছেন।আর আপনি যদি হিস্টরি থেকে এইসব ডাটা ডিলিট করে দেন তাহলেও কিন্তু সে বুঝতে পারবে আপনি ইচ্ছাকৃত ভাবে ডিলিট করেছেন।

বাট একটা ট্রিক্স আছে যেটা প্রয়োগ করলে আপনার ব্রাউজারের সমস্ত হিস্টরি ঠিক থাকবে।আপনি কিন্তু সিক্রেটলি সবকিছু হ্যান্ডেল করতে পারবেন।কিভাবে চলুন আপনাদেরকে দেখাই,,, এইযে দেখেন ব্রাউজারে আসার পর থ্রি ডটস আছে ওখানে ক্লিক দিবেন। দেওয়ার পর এইযে দেখেন new incognito tab এখানে ক্লিক দিবেন।এখন দেখেন সব কিছু ব্ল্যাক হয়ে গেছে। এখন আপনি সার্চ বারে গিয়ে যা ইচ্ছা লিখবেন লেখার পর এখানে ভিজিট করতে পারেন যা ইচ্ছা। 

এখন এই কাজ গুলো করার শেষ এ আপনি জাস্ট হচ্ছে যে ওন প্লাস বা ট্যাবের যে অংশটা থাকবে ক্লিক দিয়ে যদি আপনি এটাকে বন্ধ করে দেন তাহলে কিন্তু আপনি আবার ও আগের ব্রাউজারে চলে আসবেন।কিন্তু হিস্টরি তে আপনার কোনো কিছুই থাকবে না।।এই ট্রিকস অনেকেরই অনেক বেশি কাজে লাগতে পারে। 

ট্রিকস নম্বর ৫: আপনার বাসায় যদি এমন কোন ছোট বাচ্চা থাকে যারা আপনার স্মার্টফোন টা কে হাতে নিয়ে বিভিন্ন ওয়েবসাইট এ ঢোকার চেষ্টা করে বা অন্য কিছু করার চেষ্টা করে কিন্তু আপনি চান যে তারা কোনো প্রকার এলার্ট কোন্টেন্ট যাতে না দেখতে পায়।অর্থাৎ আপনি চান যে তারা যেন এগুলো খুজে না পায়।। তারা যদি ভুলে সার্চ ও করে ফেলে তাও যেন না পায়।।এক্ষেত্রে একটা ট্রিকস আছে... আপনি ক্রোম ব্রাউজারে যাবেন।।

এখানে আসার পর এখান থেকে থ্রি ডটস এ ক্লিক করবেন।।ক্লিক করার পর এখান থেকে আপনি সেটিংসে চলে যাবেন।সেটিংসে আসার পর এখান থেকে দেখতে পারছেন প্রাইভেসি এন্ড সিকিউরিটি নামে একটা অপশন রয়েছে এখানে ক্লিক করবেন।।এখানে ক্লিক করার পর দেখতে পারবেন ইউস সিকিউর ( ডি এন এস) এইটা সিলেক্ট করবেন।।সিলেক্ট করার পর choose another provider এই অপশন টা সিলেক্ট করে দিবেন।

আরও জানুনঃ
সিলেক্ট করার পর এখান থেকে জাস্ট এইযে দেখেন clean browsing ( family filter)এইটা কে আপনি সিলেক্ট করে দিবেন।।ফলে আপনার বাচ্চা যদি ভুলেও হ্যাডেল কন্টেন্ট দেখার চেষ্টা করে তাহলে কিন্তু হ্যাডেল কন্টেন্ট গুলো আপনার ব্রাউজারে অন হবে না।।গাইস আশা করি ট্রিকস গুলো অনেকের ই অনেক বেশি কাজে লাগবে।।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url