ChatGPT কি? কি কি কাজ করতে পারে?

পুরো ডিসেম্বর মাস জুড়ে বিশ্বকাপ যতটা আলোচিত ছিল, ততটাই আলোচিত ছিল চ্যাট জিপিটি। নভেম্বরের ৩০ তারিখ চ্যাট জিপিটি উন্মুক্ত হওয়ার পর পাঁচ দিনের মাথায় এটি ওয়ান মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার ক্রস করে গিয়েছে। যেটা পৃথিবীতে এই মুহূর্তে একটা রেকর্ড। কারণ টুইটারের মতো জনপ্রিয় সাইডের এক মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার প্র করতে দুই বছর সময় লেগে গিয়েছিল। ফেসবুকের লেগেছিল ১০ মাস, ড্রপ বক্সের লেগেছিল সাত মাস , স্পটিফাই সময় লেগেছিল ৫ মাস এরও বেশি। এতটা দ্রুত সময় মধ্যেও টিটাক বা ইনস্টাগ্রামও তাদের ওয়ান মিলিয়ন ইউজার গ্রহণ করতে পারেনি। প্লেয়ার মানে হচ্ছে চ্যাট জিপিটি আগামী দিনের ব্যবসা পরিধি বিশাল। তো আজকের ব্লগটিতে চ্যাট জিপিটি সম্পর্কে সম্পূর্ণ ধারণা দিব।

ChatGPT কি? কি কি কাজ করতে পারে?

ChatGPT কি?

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স নিয়ে বর্তমানে কাজ করা পৃথিবীতে যতগুলো কোম্পানি রয়েছে তার মধ্যে একটি হচ্ছে ওপেন এআই । ওপেন এআই এর প্রতিষ্ঠাতাগণের মধ্যে অন্যতম একজনের নাম হচ্ছে এলন মার্কস। দুই হাজার পনেরো সালে ইলন মার্কস সেল আনমন শাহ মোট ৬ জন সহযোগী মিলে ওপেন এআই প্রতিষ্ঠাতা করেন। সেটা কমপ্লিটলি নন প্রফিটেবল অর্গানাইজেশন যেটা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স দের কে নিয়ে কাজ করার জন্য। ২০১৮ সালে কোম্পানি থেকে রিজাইন করেন ইলন মার্কস। আর ২০১৯ সালে microsoft ১ বিলিয়ন ইনভেস্ট করেন ওপেন এআই তে।


ওপেন ai এর প্রথম সাকসেসফুল প্রোডাক্ট ছিল ড্যালিই। যেটি মূলত একটি ইমেজ জেনারেটর। এবং সেই ওপেন এআই এখন যে বাজারে নতুন প্রোডাক্টস ছেড়েছে সেটি হচ্ছে চ্যাট জিপিটি। এই পর্যন্ত চ্যাট জিপিটির তিনটি ভারসন রয়েছে। সেগুলো মূলত হচ্ছে
  1. চ্যাট জিপিটি
  2. চ্যাট জিপিটি টু
  3. চ্যাট জিপিটি থ্রি
আর বর্তমান সময়ে চালু রয়েছে চ্যাট জিপিটি থ্রি পয়েন্ট ফাইভ। চ্যাট জিপিতে উত্তর উত্তর সফলতায় বর্তমানে ওপেন এআই এর মার্কেট ভ্যালু গিয়ে দাঁড়িয়েছে 20 বিলিয়ন ডলার প্লাস।

চ্যাট জিপিটি মূলত হচ্ছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স দ্বারা তৈরিকৃত একটি ন্যাচারাল ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেস বা প্রাকৃতিক ভাষা প্রক্রিয়াকরণ টুলস। আরো সহজ করে যদি বলি চ্যাট জিপিটি মূলত এমন একটি চ্যাট বক্স যেটা মানুষের সাথে মানুষের মতো করে চিন্তা ভাবনা করে যে কোন প্রশ্নের উত্তর ভেবে চিন্তে দিতে পারে। দৈনন্দিন জীবনে এমন অনেক কাজ রয়েছে যেটা চ্যাট জিপিটি খুব সহজে করে দিতে পারে। যেমন একটি ইমেইল লেখা, গ্রামাটিক্যাল চেক করা, একটা প্রেজেন্টেশন তৈরি করা, একটি স্টুডেন্ট যেমন একটি গণিতের সমাধান পাবেন তেমনই একজনই প্রোগ্রামার তার প্রোগ্রামের সলিউশনের জন্য চ্যাট জিপিটি ব্যবহার করতে পারেন। রিসেন্টলি এটির ক্লিয়ারলি প্রমাণিত হয়েছে চ্যাট জিপিটি যেকোনো ধরনের বাগ সলিউশনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো কার্যকরী মাধ্যম হয়ে যাচ্ছে। তাই এই ধরনের এডভান্স চ্যাট বক্স নিয়ে ডিপলি চিন্তা করার অনেক কিছুই রয়েছে। অনেকেরই প্রশ্ন জাগতে পারে কতটা ভালো, কতটা স্ট্রং হতে পারে চ্যাট জিপিটি।

প্রাথমিকভাবে যখন চ্যাট জিপিটি উন্মুক্ত করা হলো এটার প্রতি মানুষের যে আগ্রহ দেখা গিয়েছে সারা পৃথিবী জুড়ে তা নিঃসন্দেহে অবিশ্বাস্যকর।

ওপেন ai এর প্রথম দিক করা একজন কোফাউন্ডার ছিলেন ইলন মার্কস যেটার শুরুর দিকে বলেছিলেন

চ্যাট জিপিটি


যার সহজ মাধ্যম হচ্ছে চ্যাট জিপিটি। সত্যিকার অর্থে ভয়ানক ভালো এবং মানুষ বিপদজনক আটটি ফেসিয়াল ইন্টেলিজেন্ট থেকে খুব বেশি দূরে নয়। চ্যাট জিটিপি কতটা স্ট্রং হবে তার কিছু প্রমাণ আপনাদেরকে দিচ্ছি।

ChatGPT কি কি কাজ করতে পারে?

প্রযুক্তি জগতে যতগুলো জেন্ট কোম্পানি রয়েছে তার মধ্যে google এবং অ্যাপেল অন্যতম। তাদেরও google assistant এবং আপেলের সিরি রয়েছে। যারা আপনার প্রশ্নের উত্তর সহজে খুঁজে দিচ্ছে তারা। আপনার অনেকগুলো কাজে তার হেল্প করে দিচ্ছে। কিন্তু চ্যাট জিডিপি এবং google assistant ও সিরির মধ্যে একচুয়ালি ব্যবধান তখনই হয় যখন চ্যাট জিপিটি তার মেধা খাটিয়ে প্রজেক্ট তৈরি করিয়ে দিচ্ছে বা আপনাকে এমন সলিউশন দিচ্ছে যেটা আপনি একসেপটই করতেন না।

এখানে এই স্ক্রিনশটটি দেখলেই বুঝতে পারবেন।


ChatGpt Bug fixing


যেখানে একজন প্রোগ্রামার একটি বাগ ফিক্স করার জন্য চ্যাট জিপিটিকে লিখেছিল যেখানে চ্যাট জিপিটি কোড করে দিয়ে দিয়েছে। সিমিলারলী প্রবলেম এর জন্য যেখানে চ্যাট জিপিটি সমাধানের জন্য কোড করে দিচ্ছে সেখানে google দিয়েছিল কিছু পেজ সাজেশন।

google assistant


আমি এতক্ষণ যা কিছু বললাম চাইলে আপনি ট্রাই করে দেখতে পারেন। চ্যাট জিপিটি আসলে কাজ করছে কিনা তা আপনি দেখতে পারেন। তো চলুন কিছু দেখে আসা যাক আসলেই চ্যাট জিপিটি উপরের কথাগুলোর সাথে মিলিয়ে কাজ করছে কিনা।

তার জন্য প্রথমে আমাদেরকে চলে যেতে হবে : https://chat.openai.com

এখান থেকে আপনি চ্যাট জিপিটি সরাসরি চলে যেতে পারবেন এবং আপনার যেটা প্রয়োজন সেটা আপনি এখানে লিখে জানতে পারবে।


ChatGPT


আমি এখন তাকে একটি আর্টিকেল রাখার জন্য নির্দেশ করবো দেখি সে কি লেখে।


Content writting by ChatGPT


নিউক্লিয়ার ফিউশন নিয়ে আমি তাকে একটি আর্টিকেল লিখতে বলেছি । সে কিন্তু আমাকে এখন আর্টিকেল লিখে দিবে নিউক্লিয়ার ফিউশন সম্পর্কে। আপনি যদি বিভিন্ন ধরনের ওয়ার্ড লিমিটেশন দিয়ে দেন তাও হয়তো সে সেগুলো মেনে কাজ করতে সক্ষম হবে। সে আমাকে কিন্তু ক্লিয়ার একটি আর্টিকেল লিখে দিয়েছে।


ChatGPT Content


আপনি যদি একজন প্রোগ্রামার হয়ে থাকেন তাহলে আপনি যদি সমস্যায় পড়েন তাহলে আপনি চাইলে এখানে লিখলে আপনাকে কাঙ্খিত কোডটিও লিখে দিতে সক্ষম হবে চ্যাট জিপিটি।

চ্যাট জিপিটি সত্যিকার অর্থে এমন কিছু করে যাচ্ছে যেটা কোন ধরনের আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স করেনি, দেখানোর সামর্থ্য অর্জন করেনি। যার কারণে চ্যাট জিপিটি উন্মুক্ত হবার পর সারা পৃথিবী জুড়ে মানুষের মধ্যে একটি আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। মানুষ চাই যে চ্যাট জিপিটি ব্যবহার করতে। চ্যাট gpt ব্যবহার করে নিজের আয়ের রাস্তা ভারী করে যাচ্ছে। কেউ কেউ আর্টিকেল লিখে আয়ের রাস্তা ভারী করেছে। কেউবা চ্যাট জিপিটি ব্যবহার করে ওয়েবসাইট তৈরি করছে।

এখন মনে প্রশ্ন আসতে পারে একটা সার্চ ইঞ্জিনে একই ধরনের সলিউশন খুঁজে পেতে পারি। এখানে ব্যবধান হলো আপনি যখন একটি সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ করে সলিউশন খুঁজে পাবেন সেখানে বিভিন্ন ধরনের লিংক দিবে এবং বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট সাজেস্ট করবে। কিন্তু চ্যাট জিপিটির ব্যাপারটা একদম ভিন্ন। যেকোনো ওয়েবসাইটে চাই না কোন ওয়েবসাইটের রেজাল্ট দিবে না সে সরাসরি নিজে একটা সলিউশন দিবে। যেটা আপনি দেখতে চান, জানতে চান, সেইটা যেটা আপনি একটু আগে দেখলেন সে নিজে আর্টিকেল লিখছে, সে নিজে কোড লিখছে। তো আপনি সার্চ ইঞ্জিনে খুঁজতে পারেন কিন্তু চ্যাট জিপিটি আপনাকে সরাসরি সলিউশন দিয়ে দিচ্ছে এটাই হচ্ছে এখানে মূল ব্যবধান।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে

চ্যাট জিপিটির আসলে লিমিটেশন আছে কিনা?????

হ্যাঁ আছে। চ্যাট জিপিটির এখনো বহু লিমিটেশন রয়েছে। চ্যাট জিপিটি এখনো শতভাগ সম্পন্ন না। অনেকগুলো ব্যাপার রয়েছে যেগুলিতে আপনি প্রশ্ন করলে সে হয়তো উত্তর দিতে পারবে না। তার জন্য আমি বেশ কিছু উত্তর জানতে চেয়েছিলাম। ইউক্রেন রাশিয়া যুদ্ধ নিয়ে তার কাছে প্রশ্ন লিখেছিলাম এবং সেখানেই সে বলেছিল যে তার ইন্টেলিজেন্স লিমিটেশনের কারণে সে কিছুই জানাতে পারছে না। আরো অনেক কিছু হয়তো আপনি খুঁজে পাবেন, যখন আপনি এটা ব্যবহার করতে যাবেন।

চ্যাট জিপিটি ক্যাপাবিলিটি কথা চিন্তা করতে গেলে চ্যাটজিপিটি যেভাবে কাজ করে সেই ভাবে চিন্তা করলে চ্যাট জিপিটি একটি ভালো ব্যাপার।

কিন্তু এ ভালো ব্যাপারও বিশাল ক্ষতির কারণ হয়ে গিয়ে দাঁড়াতে পারে। কারণ চ্যাট জিপিটির কারণে একটি স্টুডেন্ট ক্লাস ফাঁকি দিয়ে তার কাঙ্ক্ষিত সুবিধা চ্যাট জিপিটি থেকে নিতে পারে। কিংবা নিজের মেধা খাটিয়ে কোন কিছু করা থেকে দূরে হয়ে যেতে পারে। যেটা একটি খুবই বিপদজনক অবস্থা হয়ে গিয়ে দাঁড়াবে।

আবার চ্যাট জিপিটির কারণে মানুষের মধ্যে ক্রিয়েটিভ বুদ্ধিমত্তা অভাব দেখা দিতে পারে। যেমন রাইটিং একটা ক্রিয়েটিভ ব্যাপার আর এখন যদি কেউ চ্যাট জিপিটি ব্যবহার করে তার আর্টিকেল রাইটিং বা এধরনের রাইটিং এর কাজটা সেরে নিতে পারে। তবে যে তার ক্রিয়েটিভ রাইটিং এর মেধাটা রয়েছে সেটা ধীরে ধীরে স্থিমিত হয়ে যাবে।

আবার চ্যাট জিপিটি চাকরির বাজারেও ছোট করে দিতে পারে।

এখন শেষের দিকে প্রশ্ন হচ্ছে এমন একটি টুলস এখন পর্যন্ত কতটুকু ফ্রি। বাস্তব কথা হচ্ছে Chat gpt এখন পর্যন্ত শতভাগ ফ্রিতে রয়েছে। ওপেন এআই দাবি করেছে চ্যাট জিপিটির প্রতিটি কলের প্রতি খরচ হয়েছে এক সেন্ট করে। যার মানে খুব ক্লিয়ার প্রতিদিন কল হ্যান্ডেল করার জন্য খরচ করতে হচ্ছে  ৪৫০ থেকে ৫০০মিলিয়ন ডলারের ও এর বেশি ।

এটা নিশ্চিত ভাবে বলা যায় আগামীর দিনগুলোতে চ্যাট জিপিটি আর ফ্রি থাকছে না।

আরও জানুনঃ
আশা করি পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে। এরকম আরো গুরুত্বপূর্ণ নিউজ পেতে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। আর ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন।
ধন্যবাদ।

Next Post Previous Post
1 Comments
  •  Redoy
    Redoy 30 March 2023 at 13:02

    Nice

Add Comment
comment url