ফ্রিল্যান্সিং এর ডার্ক সাইড

আমরা যারা নতুন ফ্রিল্যন্সিং এ আসতে চাচ্ছি এই পোস্টটি তাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা সবকিছুর ভালো দিক নিয়ে চিন্তা করি। কখনও খারাপ দিক নিয়ে ভাবিওনা, চিন্তাও করিনা। আমি মনে করি আমাদের খারাপ দিক নিয়ে চিন্তা করতে হবে। এবং সেগুলো মানিয়ে নিতে হবে নিজের মতো করে।

ফ্রিল্যান্সিং এর ডার্ক সাইড

আমি আজকে কথা বলবো ফ্রিল্যান্সিং এর ডার্ক সাইড নিয়ে। যেই কথাগুলো আপনাদের কোনো ফ্রিল্যান্সার বলবে না। কারণ এগুলো জানলে হয়ত আপনি হতাশ হয়ে যাবেন বা ফ্রিল্যান্সিং সেক্টর থেকে দূরে চলে যাবেন। কিন্তু আমি মনে করি আপনি যদি ভালো এবং খারাপ দিক দুইটাই জানেন তাহলে আপনি খুব দ্রুত সফল হবেন।

আমরা অনেকেই জানি ফ্রিল্যান্সিং করে অনেকে লাখ লাখ বা কোটি টাকা আয় করছে। এটা শুনে আপনি মোটিভেট হচ্ছেন। কিন্তু আপনাকে মাথায় রাখতে হবে যে, এটা যেকোনো সময় শূণ্যতে নেমে আসতে পারে। আপনি মনে করবেন যে আমি প্রতিমাসে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করব। এটা আসলে ভুল ধারণা। এমনও হতে পারে আপনার একাউন্ট সাসপেন্ড হয়ে যেতে পারে। বা আপনি যে ক্লাইন্ট এর কাজ করছেন দীর্ঘ সময় ধরে তার কাজ নাও থাকতে পারে। আবার সে আপনাকে রিজেক্ট করে দিতে পারে।

আরও জানুনঃ সরকারি সহায়তায় বিনামূল্যে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স

তো তখন আপনি ডিপ্রেশন এ চলে যেতে পারেন বা আপনার মন ভেঙ্গে যাবে। কারণ এতো টাকা থেকে একে বারে শূণ্যতে নেমে আসবে। সুতরাং আপনাকে মাথায় রেখে কাজ করতে হবে যে আপনার ইনকাম শূণ্য থেকে যেমন কোটি টাকা হতে পারে। তেমনি কোটি টাকা থেকে শূণ্যতেও নেমে আসতে পারে। এটার জন্য আপনাকে যেটা করতে হবে প্রতিনিয়ত আপনাকে কাজ খুজতে হবে। এবং সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হবে। শুধুমাত্র মার্কেটপ্লেস এর উপর নির্ভরশীল হলে চলবে না । তাই বলা যায় এই দিক টা মাথায় রেখে ফ্রিল্যান্সিং এ আসা উচিত বা ফ্রিল্যান্সিং করা উচিত। 

আপনারা অনেকেই কোর্স করতেছেন।  এই কোর্স নিয়ে একটা সত্য কথা যেটা কেউ বলবে না । আমরা সচরাচর যতো এড দেখি সেখানে দেখি যে আপনি এই কোর্স টি করলে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে পারবেন ইত্যাদি। অনেক সাকসেস স্টোরি শেয়ার করা হয়। কিন্তু ফেল এর যে রেসিওটা কেউ শেয়ার করে না। এর কারণ হলো ফেল এর রেসিওটা দেখলে দেখা যাবে যে সাকসেস এর থেকে ফেল এর রেসিওটা বেশি হবে। সুতরাং আপনি কোর্স করার সময় রেসিওটা দেখবেন না। কারণ আপনার সাকসেস আপনার কাছে। কিন্তু কথা হলো, আপনাকে যদি কেউ বলে দেয় যে, এখান থেকে এই পরিমাণ স্টুডেন্ট সাকসেস হয়ছে বা হয় নাই।  এটা যদি আপনার জানা থাকে তাহলে, আপনার সুবিধা হবে ভাবতে যে, আমি যদি শুধুমাত্র স্কিল সেট অর্জন করি বা আমি একটি কোর্স করে নিলাম তাহলে আমি ফ্রিল্যান্সার হয়ে গেলাম বা কাজ করতে পারলাম এই ধরণের ভুল ধারণা আপনার থাকবে না।

সুতরাং আপনি যেটাই করেন আপনাকে নিজে করতে হবে। তাই আপনাদের উচিত শুধুমাত্র সাকসেস রেসিওটার উপর নির্ভর না করে ফেল এর রেসিওটা দেখে আপনার মন কে তৈরী রাখেন যে, নরমালী কিন্তু সবাই সাকসেস পায়না। সুতরাং আপনি সাকসেস পেতে হলে আপনাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। এবং সেই অনুযায়ী আপনাকে কাজ করতে হবে। শুধুমাত্র কোর্স এর ভরসা করে থাকলাম আর কোর্স করলাম আর ফ্রিল্যান্সার হয়ে গেলাম। এটা হয় না। এটা যদি হয়তো তাহলে বাংলাদেশে ফ্রিল্যান্সার এর অভাব হতো না। 

আরেকটা সত্য কথা হলো ফ্রিল্যান্সিং জব এর চেয়ে কঠিন এটা আপনাকে কেউ বলবে না। এখানে জব এর চেয়ে যেহেতু আপনি টাকা  বেশি পাচ্ছেন সুতরাং এই ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরটা একটু বেশি কঠিন হবে জব এর তুলনায়। আপনি যদি মনে করেন যে ফ্রিল্যান্সিং জব এর তুলনায় সহজ তাহলে এটা ভুল ধারণা হবে। কারণ আপনি যখন জব করেন একটা নিদিষ্ট  এরিয়াতে জব করেন বা নিদিষ্ট কাজ আপনি করেন। কিন্তু আপনি যখন ফ্রিল্যন্সিং করতে আসবেন তখন আপনাকে আপনার প্রোফাইল এর দিকে নজর দিতে হবে মার্কেট প্লেস এবং কাজ খুজতে হবে কাজ ডেলিভারি দিতে হবে ইত্যাদি। এটা আপনি মাথায় রেখে এই ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে আসবেন কিনা সিদ্ধান্ত নিবেন। 

ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে মোটামুটি যারাই জানে তারা  এই জিনিস টা ভালো করে জানে যে আপনি যেকোনো জায়গায় বসে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবেন। কারণ এটা একটা মুক্ত পেশা । এবং যেকোনো সময় করতে পারি। এর একটা ডার্ক সাইড আছে যেটা আমরা সহজে যানিনা বা সহজে আমরা বুঝতে চাইনা । সেটা হলো এমনও সময় হতে পারে যেখানে আপনার যেকোনো সময় যেকোনো জায়গায় বসে কাজ করতে হতে পারে। তাই তখন যদি সেটা আপনি না করেন তাহলে আপনার ক্লাইন্ট খুশি হবে না। আপনাকে ভালো ফিডব্যাক দিবে না যেটার কারণে আপনার একাউন্ট টা ডাউন হয়ে যাবে। 

ফ্রিল্যান্সিং এর আরেকটা ডার্ক সাইড হলো  আপনি যদি একজন কঠোর পরিশ্রমী না হন, তাহলে ফ্রিল্যান্সিংটা আপনার জন্য না। ফ্রিল্যান্সিংটা নরমালি জব বলেন বা ব্যাবসা বলেন এটা একটু কঠিন ।

আরও পড়ুনঃ সম্পূর্ণ ফ্রিতে সরকারি খরচে ফ্রিল্যান্সিং শিখুন ২০২৩

আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন । ভালো লাগলে পোস্টটি শেয়ার করুন। আরো ভালো পোস্ট পেতে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। ধন্যবাদ।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url