এন্ড্রয়েড ফোনের একটি বিপদজনক সেটিংস | Android Phone Dangerous Settings

আমরা প্রায়ই একটা কমন সমস্যায় পড়ি তা হলো বিভিন্ন একাউন্ট হ্যাক হওয়া। বিশেষ করে ফেসবুক একাউন্ট। কিন্তু আমরা জানি না যে, এইটা নিজের সামান্য ভুলের কারণেই হয়। কি সেই ভুল এবং কিভাবে সেই ভুল থেকে আমরা সাবধান থাকতে পারি সেই বিষয়ই এই পোস্টে আলোচনা করব। আশা করে আপনাদের অনেক উপকার হবে। তাই মনোযোগ সহকারে সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ুন।

এন্ড্রয়েড ফোনের একটি বিপদজনক সেটিংস | Android Phone Dangerous Secret Settings

আমাদের স্মার্টফোনে এমন একটা সেটিংস আছে, যে সেটিংসটাকে বন্ধ না করলে আমরা অনেক বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারি। তো চলুন আপনাদের সেই সেটিংস সম্পর্কে একটু ধারণা দেই।

এন্ড্রয়েড ফোনের একটি বিপদজনক সেটিংস | Android Phone Dangerous Settings

এজন্য প্রথমেই আপনাকে ক্রোম ব্রাউজার ওপেন করতে হবে। কারণ প্রায় সবাই স্মার্টফোন থেকে ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করে। ক্রোম ব্রাউজারের উপরে যে থ্রি ডট অপশন আছে সেখানে ক্লিক করতে হবে।


Crome Browser

তারপর একটু নিচের দিকে দেখবেন সেটিংস অপশন আছে। এই সেটিংস এ ক্লিক করতে হবে।

Crome Setting
এরপর পাসওয়ার্ড ম্যানেজ বা পাসওয়ার্ড নামের একটা অপশন পাবেন। এই পাসওয়ার্ড অপশনে ক্লিক করবেন। এই পাসওয়ার্ড ম্যানেজ বা পাসওয়ার্ড নামের অপশনে ক্লিক করলে আপনার ফোনের এর যে লক আছে যেমন ফিংগারপ্রিন্ট লক, প্যাটার্ন, পাসওয়ার্ড বা পিন। যেইটা আপনার ফোনে দেওয়া আছে সেইটা দিয়ে লক খুলতে হবে। আবার কোন কোন স্মার্টফোনে এইধাপে লক নাও চাইতে পারে। পরেরধাপে এই লক খুলতে হতে পারে। যাই হোক এরকম লক খুলতে বল্লে সেই লক খুলে নিবেন।

Androiad Phone Lock

লক খোলার পর দেখবেন আপনার ব্রাউজার থেকে যতগুলো সাইটে ইউজার আইডি, পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করেছেন সবগুগুলো সাইট এবং সাথে ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দেখা যাচ্ছে। পাসওয়ার্ড এর পাশে চোখের মতো আইকনে ক্লিক করলেই পাসওয়ার্ড দেখা যাবে।

পাসওয়ার্ড



আপনার স্মার্ট ফোনে যদি পাসওয়ার্ড ম্যানেজ বা পাসওয়ার্ড নামের অপশনে ক্লিক করলে ফোনে এর যে লক আছে যেমন ফিংগারপ্রিন্ট লক, প্যাটার্ন, পাসওয়ার্ড বা পিন যেইটা আপনার ফোনে দেওয়া আছে সেইটা দিয়ে লক খুলতে না বলে, তাহলে শুধু যেই সাইটগুলোতে লগইন করেছেন সেই সাইটগুলোর লিস্ট এবং মেইল এড্রেস বা ইউজার নেম দেখতে পারবেন। আর আলাদা আলাদাভাবে যখন সাইটগুলোর লিঙ্ক এ ক্লিক করবেন তখন প্রত্যেকবারই আপনার ফোনের লক খুলতে বলবে। আর লক খোলার পর ঐ সাইটের  ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দেখা যাবে। পাসওয়ার্ড এর পাশে চোখের মতো আইকনে ক্লিক করলেই পাসওয়ার্ড দেখা যাবে।

Android Phone Dangerous Secret Settings

এন্ড্রয়েড ফোনের  এই সেটিংস এর ক্ষতিটা কি? 

আপনার কোন বন্ধু যদি স্মার্টফোনের এই বিষয়টা বোঝে বা সে কোন আইটি স্পেশালিস্ট হয়ে থাকে তাহলে আপনার ফোন মাত্র কয়েক সেকেন্ড এর জন্য হাতে নিবে। আর আপনার বন্ধু হওয়াই ফোনের লক জানা স্বাভাবিক। তাই সেই লক খুলে আপনার লগইন করা সকল সাইটের ইউজার আইডি, পাসওয়ার্ড নিয়ে নিবে। যেমন আপনার ফোনে ফেসবুকসহ অনেক সাইটই লগইন করা থাকতেই পারে। আপনার বন্ধু নিমিষেই ফেসবুক আইডির ইউজারনেম, পাসওয়ার্ড দেখে নিতে পারবে। আর সে লগইন  করে ফেলবে তখন আপনার মনে হবে আপনার ফেসবুক আইড হ্যাক হয়েছে। আসলে কিন্তু হ্যাক হয়নি । আপনার ফেসবুক আইডির ইউজারনেম, পাসওয়ার্ড চুরি করা হয়েছে। কিন্তু আপনি বুঝতে পারেন নি।

এছাড়াও যদি আপনার ফোনের কন্ট্রোল অন্য কারো হাতে চলে যায়। যেমন কোন হ্যাকার যদি আপনার ফোনের কন্ট্রোল নিয়ে নেয় তাহলে সে কিন্তু খুব সহজেই দেখতে পারবে আপনার কোন সাইটের কি ইউজারনেম, পাসওয়ার্ড দেওয়া আছে। তাই এইটা আমাদের জন্য খুবই রিস্ক।

আমরা কিভাবে এন্ড্রয়েড ফোনের এই বিপদজনক সেটিংস চালু করি?

আমরা ক্রোম ব্রাউজারে আসার পর যখন কোন সাইটের ইউজারনেম, পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করি তখন আমাদের কে একটা অনুমতি দিতে বলে যে আমরা ইউজারনেম, পাসওয়ার্ড সেভ করে রাখতে চাই কিনা। আমরা না বুঝেই সেভ করে দেয় বা পরবর্তীতে যাতে পুনরায় ইউজারনেম, পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে না হয়। সেজন্য সেভ করে রাখি। 

Save Password Option

এতে পরবর্তীতে লগইন করার সময় অটোমেটিক ইউজারনেম, পাসওয়ার্ড নিয়ে নেয়। এতটুকু সুবিধা নিতে গিয়েই মূলত আমরা ভুলটা করে থাকি। এই সেভ পাসওয়ার্ড এ ক্লিক করলে আমাদের ইউজারনেম, পাসওয়ার্ডগুলো সেভ হয়ে থাকে।

এন্ড্রয়েড ফোনে এই বিপদজনক সেটিংস কেন দিয়েছে?

আমাদের ফোনে যে একটা প্রাইমারি সিকিউরিটি অপশন আছে যেমন ফিংগারপ্রিন্ট লক, প্যাটার্ন, পাসওয়ার্ড বা পিন সেইটার উপর নির্ভর করেই মুলত এই অপশন টা দিয়েছে। যদি আমাদের ফোনের এই লক কেউ জানতে না পারে তাহলে, সে নিতে পারবে না। কিন্তু বাস্তবে আমাদের ফোন অনেকেই হাতে নেই। একসাথে চলার সময় অনেকেই আমাদের ফোন ব্যবহার করে বসে।

আমরা কিভাবে এন্ড্রয়েড ফোনের এই বিপদজনক সেটিংস থেকে বাচতে পারি?

আপনার ফোন যদি অন্য কেউ ব্যবহার করার সম্ভাবনা থাকে বা একসাথে চলার সময় কেউ ব্যবহার করে তাহলে আপনার ফোনে এই ইউজারনেম, পাসওয়ার্ড সেভ করা থেকে বিরত থাকুন। তাহলে আপনার ব্যবহার করা সকল একাউন্ট নিরাপদে থাকবে।

আপনি নিজেও এন্ড্রয়েড ফোনের এই বিপদজনক সেটিংস থেকে বাচুন আর শেয়ার করে আপনার বন্ধুদেরও সাবধান করে দিন। প্রতিদিন এরকম গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট পেতে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। ধন্যবাদ।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url