google.com, pub-8571279523475240, DIRECT, f08c47fec0942fa0 Freelancers IT | Learn More About Freelancing and Outsourcing

sfd

ফ্রিল্যান্সিং কোথায় শিখব?

নতুনরা যখন ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে কাজ শিখে ক্যারিয়ার বিল্ড করার কথা চিন্তা করে। এবং কাজ শিখার জন্য মনকে স্থির করে। তারপরেই সবাই যে,সমস্যায় পরে। সেটি হলো কোথায় থেকে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ শেখা যায়। বা কাজ গুলো শিখার জন্য কোন ট্রেনিং সেন্টার টি সবচেয়ে ভালো। অনেকে আবার নিজে নিজেই শিখতে চাচ্ছে। কিন্তু সঠিক গাইডলাইন এর অভাবে শিখতে পারছে না। 

ফ্রিল্যান্সিং কোথায় শিখব

এছাড়াও অনেকে আবার ভুয়া ট্রেনিং সেন্টার এ গিয়ে প্রতিনিয়ত প্রতারিত হচ্ছে। কেউ কেউ অনলাইনে বিভিন্ন কোর্স কিনে অনেক টাকা খরচ করছে। কিন্তু কোনো লাভ হচ্ছে না। সুতরাং এই পোস্ট এ আলোচনা করবো যে, কোথায় থেকে বা কোন ট্রেনিং সেন্টারগুলো থেকে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ ভালোভাবে শিখতে পারবেন। এবং একটি ট্রেনিং সেন্টার সিলেক্ট করার আগে যে যে বিষয়গুলো যাচাই করে নিতে হবে। আশা করি মনোযোগ দিয়ে পড়লে আপনি এই সকল কিছু জানতে পারবেন। 

কোন ট্রেনিং সেন্টারগুলো থেকে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ ভালোভাবে শিখতে পারবেন? 

ফ্রিল্যান্সিং বা ইন্টানেট থেকে আয়, এ বিষয়গুলো দিন দিন জনপ্রিয় হওয়ার সাথে সাথে বাংলাদেশে প্রাতনিয়তই হাজার হাজার ট্রেনিং সেন্টার চালু হচ্ছে। এর সাথে সাথে কিছু অসাধু ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান  ফ্রিল্যান্সিং এর নাম নিয়ে ট্রেনিং সেন্টারগুলোকে এমনভাবে মার্কেটিং করছে যে, ঐ সকল ভুয়া ট্রেনিং সেন্টারগুলোতে গিয়ে যদি কোর্স না করেন তাহলে, আপনি কখনো ফ্রিল্যান্সার হতেই পারবেন না। নতুনদের মধ্যে অনেকে ভাবেন যে কোনো ট্রেনিং সেন্টার এ না গেলে তারা কখনো কোন কাজ শিখতেই পারবে না। 

তাদের কাছে আমার একটা প্রশ্ন,  আপনি যে ট্রেইনার এর কাছ থেকে শিখবেন, সেই ও তো কারো না কারো কাছ থেকে শিখেছে। এবং সে যার কাছ থেকে শিখেছে সেও কিন্তু কারো না কারো কাছ থেকে শিখেছে। যদি এরকম করে চিন্তা করেন তাহলে একেবারে প্রথমে যে শিখেছে সে কিন্তু অবশ্যই কোনো ট্রেনিং সেন্টার বা কারো কাছ থেকে শিখেনি। সে নিজে নিজে শিখেছে এবং অন্যদের শিখিয়েছে। তাই এই বিষয়টা সবসময় মাথায় রাখবেন যে আপনাকে কোনো ট্রেনিং সেন্টার এ গিয়েই যে শিখতে হবে এমন কোনো কথা নেই। আপনি এই ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে কতটুকু সাকসেস হবেন বা কি পরিমাণ স্কিলড  পারসন হবেন তা, ১০০% নির্ভর করে আপনার নিজের উপরেই। 

এখন আপনারা বলবেন ভাইয়া আমরা নিজেরা কেমনে শিখব। আমি বলব আপনারা ইউটিউব দেখে শিখবেন অথবা ব্লগ পরে পরে বা বই পড়ে। তো ইউটিউব দেখে শিখবেন কিভাবে। ধরেন আমি ওয়েব ডিজাইন শিখব বা ওয়েব ডেভলপমেন্ট শিখব। আমি যদি একটু ইউটিউব এ চলে যাই আর ওয়েব ডিজাইন টিউটেরিয়াল লিখে সার্চ করি,

ইউটিউব দেখে কিভাবে শিখবেন

আপনি এরকম অসংখ্য ভিডিও আপনি পাবেন কাজ শিখার জন্য। এখন কোন ভিডিও আপনি দেখবেন। দেখবেন যে ভিডিওগুলো প্লে লিস্ট আকারে আছে। সেগুলো দেখবেন আর প্রাকটিস করবেন। এ রকম ২০-২৫ টা প্লে লিস্ট আপনাকে দেখতে হবে এবং প্রাকটিস করতে হবে, কাজটি ভালো ভাবে শেখার জন্য। তবে অনেকে বলে যে আমার ভিডিও দেখে হচ্ছে না। বা কিছু প্রশ্ন থেকে যায়। এখন যেটি করতে হয় গুগলে গিয়ে উত্তর জেনে নিতে হয়। এছাড়া কিন্তু হবে না আর আর একটা জিনিস যারা টিউটেরিয়াল তৈরী করেছেন তারা কিন্তু কখনই অসম্পূর্ণ রেখে ভিডিও শেষ করে নাই। 

ধরেন আপনাকে একটা আপেল খেতে দেওয়া হয়েছে কিভাবে খাবেন সেটাও শিখে দেওয়া হয়েছে  এখন যদি কয়টা টুকরা করে আপেলটি খাবেন  এটাও যদি আপনাকে বলে দিতে হয়। তাহলে কিন্তু আপনার দ্বারা কোন কাজ শিখা সম্ভব না। নিজেই কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখবেন জানতে নিচের পোস্টগুলো পড়ুনঃ

সুতরাং আমরা ইউটিউব দেখে কাজ শিখতে পারি। যাদেরকে কোন কিছু কান ধরে শিখাতে হয় তাদের জন্য ইউটিউব হবে না। যারা মনোযোগ দিয়ে শিখি তাদের জন্য ইউটিউব যথেষ্ট। আপনি মনে করছেন আপনার ভালো গাইডলাইন প্রয়োজন। তাই আপনি ট্রেনিং সেন্টার এ যেতে চাচ্ছেন। এক্ষেত্রে আপনাকে ভালো মানের ট্রেনিং সেন্টার বেছে নিতে হবে। 

ট্রেনিং সেন্টার সিলেক্ট করার আগে যে যে বিষয়গুলো যাচাই করে নিতে হবে

আপনাদের একটা উদাহরণ দিলে ভালো বুঝতে পারবেন। ধরেন আপনি এইচ এস সি শেষ করেছেন। এখন আপনি ভালো প্রাইভেট ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হবেন। যে বিষয় গুলো যাচাই করতে হবে সেগুলো হলোঃ

  1. ইউনিভর্সিটি টি কত বছর আগের এবং রেপুটেশন কি রকম।
  2.  ইউনিভর্সিটি তে কি কি সাবজেক্ট রয়েছে এবং কোন সাবজেক্ট এর জন্য বিখ্যাত। 
  3.  ইউনিভর্সিটি তে এর আগে কি পরিমান স্টুডেন্ট পড়াশোনা করেছে এবং তাদের বর্তমান অবস্থা কি রকম আর কতটা সাকসেসফুল। 
  4.  ইউনিভর্সিটি তে কতজন খ্যাতিমান প্রফেসর ও লেকচারার রয়েছে? তাদের ব্যাকগ্রাউন্ড কি ?
  5.  ইউনিভর্সিটি তে ছাত্রদের পড়াশোনার ওভারাল পরিবেশ ও তাদের শেখানোর কারিকুলাম কি রকম।

এছাড়াও আরো অনেক কিছু যাচাই করে নিতে হয়। কারণ আমরা একটা ভালো  ইউনিভর্সিটি তে ভর্তি হতে পারলে আমাদের জিবন সেটেল হয়। ঠিক একই ভাবে যদি আপনি ভালো ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হতে পারেন। তাহলে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরূটা অনেক ভালোভাবেই শুরূ হবে। এবং আপনাদের নিজেদের চেষ্টা আর একটি ভালো ট্রেনিং সেন্টার এর গাইডলাইন ও সাপোর্টে এর কারনে আপনাদের ক্যারিয়ার পুরোটাই পাল্টে যাবে। তাই আপনি ট্রেনিং সেন্টার ঠিক করার জন্য  উপরে  ইউনিভর্সিটি এর জায়গায ট্রেনিং সেন্টার লাগিয়ে দেন। তাহলেই আপনি ভালো ট্রেনিং সেন্টার ঠিক করতে পারবেন। বাংলাদেশের সেরা আইটি ট্রেনিং সেন্টার সম্পর্কে জানতে নিচের পোস্ট টি পড়ুনঃ

আশা করি এই পোস্ট টি আপনাদের অনেক উপকারে এসেছে। যদি ভালো লাগে আপনার বন্ধুদের সাথে পোস্টটি শেয়ার করুন। পোস্ট টি পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

as