google.com, pub-8571279523475240, DIRECT, f08c47fec0942fa0 Freelancers IT | Learn More About Freelancing and Outsourcing

sfd

চীনের বাজারে ১নম্বর মোবাইল ব্রান্ড কোনটি ?

স্মার্টফোন জগতে ২০২০ সালে বেজলেস ডিসপ্লে এবং ওয়াটার-ড্রপ নচ এর মত নিত্য নতুন কিছু ডিজাইন ট্রেন্ড লক্ষ্য করা যায়। একই সাথে ডুয়াল/ট্রিপল ক্যামেরায় বোকেহ ইফেক্ট এবং ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার করা যায় এমন ক্যামেরা যুক্ত স্মার্ট ফিচারটি খুবই আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল। বর্তমান ২০২১ সালে এসে স্মার্টফোনের এই ফিচারগুলোকে আরো উন্নত রূপে বাজারে এসেছে।

আরও গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট দেখুনঃ

বিশ্বের সেরা স্মার্টফোনের তালিকায়  ২০২১ সালে যে সকল ফোনগুলো তালিকাভূক্ত হয়েছে :

১০ম স্থানে অবস্থানকারী স্মার্টফোনটি :
Xiaomi Redmi K30 Pro ।। শাওমি রেডমি কে-৩০ প্রো :

স্মার্টফোন জগতে ২০২১ সালে সেরা স্মার্টফোনের তালিকায় Xiaomi Redmi K30 Pro ।। শাওমি রেডমি কে-৩০ প্রো ফোনটি ১০ম স্থানে অবস্থান করছে। শাওমি রেডমি কে-৩০ প্রো ফোনটি তার ফিচারের কোন কমতি রাখেনি। এই স্মার্ট ফোনটিতে রয়েছে পপ-আপ ফ্রন্ট ক্যামেরা, কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ চিপসেট ব্যবহৃত হচ্ছে স্মার্টফোনটিতে। শাওমি রেডমি কে-৩০ প্রো স্মার্টফোনটির দ্রুতগতি সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ফাস্ট চিপসেট এর সাথে অতিরিক্ত হিসাবে ইউএফএস ৩.১ স্টোরেজ যুক্ত করা হয়েছে।

Xiaomi Redmi K30 Pro

শাওমি রেডমি কে-৩০ প্রো স্মার্টফোনটির রয়েছে অসাধারণ ক্যামেরা। ফোনটির রিয়ার ক্যামেরা দিয়ে সর্বোচ্চ ৩০ ফ্রেম পার সেকেন্ড ৮কে রেজ্যুলিউশনে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। স্মার্টফোনটিতে ছবি তুলতে ২০ মেগা পিক্সেলের সেলপি ক্যামেরার পাশাপাশি যুক্ত করা হয়েছে ৬৪ মেগাপিক্সেলের ব্যাক ক্যামেরা এবং ১৩ মেগাপিক্সেলের আল্টাওয়াইড। টেলিফটো ম্যাক্রো ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেলের, ডেপথ সেন্সর ২ মেগাপিক্সেলের। শাওমি রেডমি কে-৩০ প্রো ফোনটির ডিসপ্লে সাইজ ৬.৬৭ ইঞ্চি, আন্ডার-ডিসপ্লে ফিংগারপ্রিন্ট সেস্নর এর সাথে ৫ জি নেটওয়ার্ক সুবিধা রয়েছে রেডমি কে-৩০ প্রো ভার্সনে। স্মার্টফোনটির ১২ জিবি উচ্চমানের র‌্যাম অপশন এবং ২৫৬ জিবি ফোন মেমোরি অপশন রয়েছে। রেডমি কে-৩০ প্রো ফোনটিতে আছে ৪৭০০ মিলি এম্প ব্যাটারি, যেটি ৩০ ওয়ার্ট চার্জারে মাধ্যমে চার্জ করতে সময় লাগে মাত্র ৬৭ মিনিট। শাওমি রেডমি কে-৩০ প্রো ফোনটির বতর্মান ভারতে বাজার মূল্য প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ হাজার রুপি হতে পারে।

Xiaomi Redmi K30 Pro ।। শাওমি রেডমি কে-৩০ প্রো এর ফিচার:

ডিসপ্লে

৬.৬৭ ইঞ্চি সুপার অ্যামোলেড

প্রসেসর

স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫

ব্যাক ক্যামেরা

৬৪ মেগাপিক্সেল মেইন ক্যামেরা

১৩ মেগাপিক্সেল আল্টাওয়াইড ক্যামেরা

৫মেগা পিক্সেল টেলিফটো ম্যাক্রো ক্যামেরা

২ মেগাপিক্সেল ডেপথ সেন্সর

ফ্রন্ট ক্যামেরা

২০ মেগাপিক্সেল পপ-আপ ক্যামেরা

র‌্যাম

৬ জিবি/৮জিবি/১২ জিবি

ইন্টারনাল মেমোরি/রম

১২৮ জিবি/ ২৫৬ জিবি

ব্যাটারি

৪৭০০ মিলি এম্প

চার্জিং

৩০ ওয়ার্ট ফাস্ট

শাওমি রেডমি কে-৩০প্রো ফোনটির বডি

ওজন : ২১৮ গ্রাম

সামনের গ্লাস (গরিলা গ্লাস-৫), পিছনের গ্লাস (গরিলা গ্লাস-৫), অ্যালুমেনিয়ামের ফ্রেম

কালার

ন্যানো ব্ল, প্যানথম হোয়াইট, ইলেকট্রিক পারপাল, সাইবার গ্রে

০৯ম স্থানে অবস্থানকারী স্মার্টফোনটি :
Samsung Galaxy Z Fold 2 5G।।স্যামসাং গ্যালাক্সি জি ফোল্ড ২ ৫জি

বিশ্বের সেরা স্মার্টফোন গুলোর মধ্যে স্যামসাং গ্যালাক্সি জি ফোল্ড ২, ৫জি ফোনটি ০৯ম স্থানে অবস্থান করছে। ৫জি নের্টওয়ার্ক চালু থাকায় স্যামসাং ফোনটির নামের পাশে ৫জি শব্দটি যুক্ত করে দিয়েছে। সেরা ১০ টি ফোনের তালিকায় সব কয়টি ফোনে ৫জি থাকলেও গ্যালাক্সি জি ফোল্ড ২ ফোনটি ব্যতিক্রম।

Samsung Galaxy Z Fold 2 5G

এই ফোনটির ক্যামেরা ৩ টি ১২+১২+১২ এম পি এলইডি ফ্ল্যাশ, এইচডিআর, প্যানোরামা এবং 4K @ 60fps, 1080p @ 60 / 240fps (গাইরো-ইআইএস), 720 পি @ 960fps (জাইরো-ইআইএস), এইচডিআর 10 ভিডিও রেকর্ডিং এর সুবিদা এবং ফোনটির সেলফি ক্যামেরা 10 এমপি, এফ / 2.2, 26 মিমি (প্রশস্ত), 1/3 “, 1.22µm এইচডিআর এবং 4K @ 30fps, 1080p @ 30fps, গাইরো-ইআইএস ভিডিও রেকর্ডিং এর সুবিদা রয়েছে।
সেরা ১০টি স্মার্ট ফোনের মধ্যে স্যামসাং গ্যালাক্সি জি ফোল্ড ২, ৫জি একমাত্র ফোল্ডিং ফোন হওয়ার কারণে ফোনটি অন্যতম ও নতুন প্রযুক্তি। ফোল্ডিং ফোনের অনেক সুবিধার কথা বিবেচনা করে উক্ত ফোনটি স্মার্টফোনের জায়গা ফোল্ডিং ফোনটি অবস্থান করলেও, অন্যান্য কার্যক্ষমতা প্রায় একই থাকবে। স্যাসসাং এর ওয়েবসাইট অনুসারে ফোনটির বাজার মূল্য ৯৯৯ ডলার থেকে ১৪৯৯ ডলার পর্যন্ত হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।

Samsung Galaxy Z Fold 2 5G।।স্যামসাং গ্যালাক্সি জি ফোল্ড ২ ৫জি এর ফিচার:

ডিসপ্লে

৭.৬ ইঞ্চি এমোলেড

প্রসেসর

স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫+
১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট

ব্যাক ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল আল্টাওয়াইড ক্যামেরা

১২মেগা পিক্সেল টেলিফটো ম্যাক্রো ক্যামেরা


ফ্রন্ট ক্যামেরা

১০ মেগাপিক্সেল +১০ মেগাপিক্সেল

র‌্যাম

১২ জিবি

ইন্টারনাল মেমোরি/রম

২৫৬ জিবি/ ৫১২ জিবি

ব্যাটারি

৪৫০০ মিলি এম্প

চার্জিং

২৫ ওয়ার্ট ফাস্ট চার্জি/ ১১ ওয়ার্ট ওয়্যারলেস


শাওমি রেডমি 
কে-৩০প্রো ফোনটির বডি


ওজন : ২৭৯ গ্রাম
সামনের গ্লাস (ফোল্ডেড), সামনে প্লাস্টিক (আন-ফোল্ডেড) পিছনে গ্লাস, অ্যালুমেনিয়ামের ফ্রেম, সিম- ন্যানো


০৮ম স্থানে অবস্থানকারী স্মার্টফোনটি :
Vivo IQOO 5 Pro।। ভিভো আইকো ৫ প্রো

ভিভো আইকো ৫ প্রো ফোনটি বিশ্বের সেরা স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে ০৮ ম স্থানে অবস্থান করে করছে। ফোনটির দাম কম হলেও ফোনটি কমতি রাখেনি অন্যান্য দামী ফোনের কোন অংশে। দাম কম হলেই যে জিনিসের গুনগত মানও কম হয় কথাটি আদৌ ঠিক নয়। যার বাস্তব প্রমান রেখেছে ভিভো আইকো ৫ প্রো ফোনটি। এই স্মার্ট ফোনটির দাম তুলনামূলক ভাবে কম হলেও বাজারের অন্য সকল দামী দামী ফোনের সাথে টক্কর দিয়ে বিশ্বেসর সেরা স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে ৮ম স্থানে অবস্থান করছে। ফোনটি ক্যামেরা থেকে শুরু করে ডিস-প্লে, প্রসেসর সবই একদম টপ-নচ লেভেলের। এই ফোনটির মূল্য ৬১০ ইউরো নির্ধারন করা হলেও অন্যান্য দামী ফোনের থেকে কোন ফিচার বাদ যায়নি এই ফোন থেকে।


Vivo IQOO 5 Pro

আইকিউইউ-র বহুল প্রতীক্ষিত পরবর্তী-জেন ফ্ল্যাগশিপটি অবশেষে উন্মোচন করা হয়েছে - ভিভো আইকিউ ৫ ফ্ল্যাগশিপটি কয়েকটি সুন্দর চশমা এবং একটি সুন্দরভাবে তৈরি নকশার ভিতরে অর্থের জন্য অবিশ্বাস্য মানের প্যাকগুলি। এই প্রিমিয়াম ফ্ল্যাগশিপের কয়েকটি প্রধান হাইলাইটগুলির মধ্যে রয়েছে একটি চমকপ্রদ প্রদর্শন, ভাল ক্যামেরা, একটি বিশাল ব্যাটারি, শক্তিশালী পারফরম্যান্স এবং একটি দৃষ্টিনন্দন ডিজাইন।

ভিভো আইকো ৫ প্রো ফোনটির রয়েছে ৫জি নের্টওয়ার্কিং সুবিধা, ৬.৬৫ ইঞ্চির অ্যামোলেড ডিসপ্লে, ১২০ ওয়ার্টের অতি দ্রুত গতি সম্পন্ন চার্জার এবং ১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট। যেটা অন্যান্য দামী ফোনের তুলনায় কোন অংশে কম কমতি না। ফোনটির দাম তুলনামূলক ভাবে কম নির্ধারন করা হওয়ার কারণে এবং ফোনটির সার্ভিস অনেক উন্নত মানের হওয়ায় ভিভো আইকো ৫ প্রো ফোনটি খুব অল্প সময়ে স্মার্ট ফোন জগতে তার বিস্তার লাভ করে।

Vivo IQOO 5 Pro।। ভিভো আইকো ৫ প্রো এর ফিচার:

ডিসপ্লে

৬.৬৫ ইঞ্চি অ্যামোলেড
১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট

প্রসেসর

স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫

ব্যাক ক্যামেরা

৫০ মেগাপিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরা

৮ মেগাপিক্সেল প্রেরিস্কোপ টেলিফটো ক্যামেরা

১৩মেগা পিক্সেল  আলট্রাওয়াইড ক্যামেরা


ফ্রন্ট ক্যামেরা

১৬ মেগাপিক্সেল 


র‌্যাম

৮ জিবি/১২ জিবি


ইন্টারনাল মেমোরি/রম

২৫৬ জিবি


ব্যাটারি

৪০০০ মিলি এম্প


চার্জিং

কালার

১২০ ওয়ার্ট সুপার ফাস্ট চার্জিং

সাদা, কালো


মডেল


v2025a


০৭ম স্থানে অবস্থানকারী স্মার্টফোনটি :

OnePlus 8 Pro।। ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো

ওয়ানপ্লাস ৮ সিরিজের ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো ফোনটি স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে এ বছরের একটি সেরা ফোন। স্বল্প মূলে ফ্লাগশিপ স্পেসিফিকেশন অফার করার মত ওয়ানপ্লাসের ফ্যানরা ওয়ানপ্লাস ৮ লাইন-আপ নিয়ে এবার বেশ কিছুটা অসন্তুষ্ট ছিলো।

OnePlus 8 Pro

ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো ফোনটির ব্যাক প্যানেলে ৪টি ক্যামেরা আছে। ৪৮ মেগাপিক্সলের মেন ক্যামেরায় সোনির লেন্স রয়েছে। ৪৮ মেগাপিক্সলের আল্ট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গল ক্যামেরা রয়েছে। সব থেকে নীচে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সলের স্পেশাল কালার ফিল্টার ক্যামেরা। এছাড়া আছে ৮ মেগাপিক্সলের হাইব্রিড জুম ক্যামেরা, তাতে ৩০X ডিজিটাল জুম। ৬.৭৮ ইঞ্চির ১২০ হার্জ রিফ্রেশ যুক্ত ডিসপ্লের কোয়াড ক্যামেরা সেটাপের ফোন ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো এর মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৯৯ ডলার। ফোনটির রয়েছে ৪৫১০ মিলি এম্প এর ব্যাটারী শক্তি, ৩০ ওয়ার্টের ফাস্ট চার্জার যেটি ফোনটিকে অতি দ্রুত চার্জ করতে সাহায্য করবে।

ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো ফোনটির তেমন কোন অতিরিক্ত ফিচার না থাকলেও প্রয়োজনীয় সব ধরনের ফিচার রয়েছে। ফলে উক্ত ফোনটি ২০২১ সালের বিশ্বের সেরা ১০টি স্মার্টফোনের মধ্যে স্থান পেয়ে ৭ম স্থানে অবস্থান করছে।

OnePlus 8 Pro।। ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো এর ফিচার:

ডিসপ্লে

৬.৭৮ ইঞ্চি অ্যামোলেড
১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট

প্রসেসর

স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫

ব্যাক ক্যামেরা

৪৮ মেগাপিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরা

৮ মেগাপিক্সেল প্রেরিস্কোপ টেলিফটো ক্যামেরা

৫ মেগা পিক্সেল  কালার ফিল্টার ক্যামেরা


ফ্রন্ট ক্যামেরা

১৬ মেগাপিক্সেল পাঞ্চ- হোল ক্যামেরা


র‌্যাম

৮ জিবি/১২ জিবি


ইন্টারনাল মেমোরি/রম

১২৮জিবি/২৫৬ জিবি


ব্যাটারি

৪৫১০ মিলি এম্প


চার্জিং

কালার

৩০ ওয়ার্ট  ফাস্ট/ ৩০ ওয়ার্ট ওয়্যারলেস

গ্লাসিয়াল গ্রীন, আলট্রামেরিন ব্ল, অনিক্স ব্লাক


মডেল


IN2023, IN2020, IN2021, IN2025


০৬ষ্ঠ স্থানে অবস্থানকারী স্মার্টফোনটি :

Oppo Find X2 Pro।। অপো ফাইন্ড এক্স২ প্রো

অপো ব্যান্ডের ফোন বিশ্বে বহুল প্রচলিত। এর ব্যান্ডের খ্যাতি সর্ম্পকে আমরা সাবাই কম-বেশি জানি। বিশ্বের সবথেকে দামী ফোন গুলোর মধ্যে অপো একটি । বর্তমান বিশ্বের স্মার্টফোন বাজারে অপো ব্যন্ডের স্মার্ট ফোনের লেটেস্ট অপো ফাইন্ড এক্স-২ প্রো। ফোনটি বিশ্বের সেরা স্মার্টফোনের তালিকায় ৬ষ্ঠ স্থানে অবস্থান করছে।

অপো স্মার্টফোনটির মূল্য ৮৯৯ ইউরো নির্ধারন করা হয়েছে। এই ফোনের প্রত্যেকটি স্পেসিফিকেশন ই অন্যান্য স্মার্টফোনগুলোর মত টপ-নচ লেভেলের।

Oppo Find X2 Pro

স্মার্ট ফোনটির ৬.৭ ইঞ্চির অ্যামোলেড ডিসপ্লে, ১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট এবং ৬৫ ওয়ার্ট সুপারভুক চার্জিং সুবিধা রয়েছে ফোনটিতে, যা ফোনটিকে অতি উন্নতর করতে সহায়তা করছে। অপো ফাইন্ড এক্স২ প্রো ফোনটিতে রয়েছে ৪৮ মেগা পিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরা। তাছারা ৪৮ মেগাপিক্সেল আলট্রাওয়াইড ক্যামেরা এবং ১৩ মেগাপিক্সেল পেরিস্কোপ টেলিফটো ক্যামেরা নিয়ে গঠিত হয়েছে উক্ত স্মার্ট ফোনটি। এই ফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে ৩২ মেগাপিক্সেল।

Oppo Find X2 Pro।। অপো ফাইন্ড এক্স২ প্রো এর ফিচার:

ডিসপ্লে

৬.৭ ইঞ্চি অ্যামোলেড
১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট

প্রসেসর

স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫

ব্যাক ক্যামেরা

৪৮ মেগাপিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরা

১৩ মেগাপিক্সেল প্রেরিস্কোপ টেলিফটো ক্যামেরা

৪৮ মেগা পিক্সেল আলট্রাওয়াইড ক্যামেরা


ফ্রন্ট ক্যামেরা

৩২ মেগাপিক্সেল 


র‌্যাম

১২ জিবি


ইন্টারনাল মেমোরি/রম

২৫৬জিবি/৫১২ জিবি


ব্যাটারি

৪২৬০ মিলি এম্প


চার্জিং

কালার

৬৫ ওয়ার্ট  সুপারভুক ২.০ চার্জিং

ব্লাক, ওয়ারেঞ্জ, গ্রে, গ্রীন, ল্যাম্বজিন এডিশন 


মডেল


CPH2025, PDEM30


০৫ম স্থানে অবস্থানকারী স্মার্টফোনটি :

Xiaomi Mi 10 Ultra।। শাওমি এমআই ১০ আলট্রা :

শাওমি এমআই ১০ আলট্রা ফোনটি তার গুনগতমান অনুসারে বিশ্বের সেরা স্মার্ট ফোনের তালিকায় পঞ্চম স্থানটিতে অবস্থান করছে। শাওমি ব্রান্ডের ১০ বছরের ফুর্তি উপলক্ষ্যে শাওমি এমআই ১০ আলট্রা ফোনটি বাজারে ছেড়েছিল। ফোনটি শাওমির ১০ বছরের ফুর্তি উপলক্ষ্যে তৈরি করায় শাওমি এই ফোনটি তৈরিতে কোন দিক থেকে কমতি রাখেনি। ফোনটি তৈরি বাজার মূল্য নির্ধারন করা হয়েছিল ৮০০ ডলার। শাওমি এমআই ১০ আলট্রা ফোনটি দেখেই বোঝা যায় এটির গুনগতমান খুবই উন্নতমানের।
Xiaomi Mi 10 Ultra

শাওমি এমআই ১০ আলট্রা ফোনটিতে যে সুবিধা গুলো পাওয়া যাবে : 

এই ফোনটিতে রয়েছে ৪৮ মেগাপিক্সেল টেলিস্কোপ টেলিফটো, ১২ মেগাপিক্সেল টেলিফটো, ২০ মেগাপিক্সেল আলট্টাোয়াইড এবং ৪৮ মেগাপিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরাযুক্ত। এই ফোনটিতে সর্বমোট .০৪টি ক্যামেরা সংযুক্ত করা হয়েছে। শাও এমআই ১০ আলট্টা ফোনটিতে বাদ যায়নি কোন স্পেসিফিকেশন।

ফোনটির চার্জিং সুবিধারে মধ্যে যে গুলো পাওয়া যাবে :

শাওমি এমআই ১০ আলট্টা ফোনটিতে চার্জিং সুবিধা বলতে এক কথায় বলা যায় ফোনটিতে রয়েছে অসাধারণ চার্জিং ক্ষমতা। ফোনটিতে শক্তিশালী স্নাপড্রাগন ৮৬৫ চিপসেট ব্যবহৃত হচ্ছে। ফোনটি অতি দ্রুত চার্জ হওয়ার সাথে সাথে হাই-রিফ্রেশ রেট এর কারণে বিশ্বের সেরা স্মার্ট ফোনের তালিকায় তার অবস্থানটি করে নিয়েছে খুব সহজে।

Xiaomi Mi 10 Ultra।। শাওমি এমআই ১০ আলট্রা এর ফিচার:

ডিসপ্লে

৬.৬৭ ইঞ্চি ওলেড
১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট

প্রসেসর

স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫

ব্যাক ক্যামেরা

৪৮ মেগাপিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল  টেলিফটো ক্যামেরা

৪৮ মেগা পিক্সেল টেলিস্কোপ টেলিফটো ক্যামেরা

২০ মেগাপিক্সেল আলট্টাওয়াইড ক্যামেরা 


ফ্রন্ট ক্যামেরা

২০ মেগাপিক্সেল 


র‌্যাম

৮জিবি/১২ জিবি


ইন্টারনাল মেমোরি/রম

১২৮জিবি/২৫৬জিবি/৫১২ জিবি


ব্যাটারি

৪৫০০ মিলি এম্প


চার্জিং

কালার

১২০ ওয়ার্ট  ফাস্ট চার্জিং/ ৫০ ওয়ার্ট ফাস্ট ওয়্যারলেস

অবসাইডিয়ান ব্লাক, মারজারি সিলভার, ট্রেনেসপারেন্ট এডিশন


মডেল


M2007J1SC


০৪ম স্থানে অবস্থানকারী স্মার্টফোনটি :

Asus Rog Phone 3।। আসুস আরওজি ফোন ৩ :

আসুস আরওজি স্মার্ট ফোনটি ২০২০ সালের আগস্ট মাসে বাজারে ছাড়া এসেছিল। গেমিং ফোন হিসাবে এই ফোনটি একটি অসাধারণ ফোন। মূলত আসুস ফোন বলতে আমরা খুবই অল্পতে বুঝে ফেলি এটি একটা গেমিং ফোন। তবে আসুসের অন্যান্য সিরিজের ফোন থেকে এটি একটু ব্যতিক্রম স্মার্ট ফোন। আসুস আরওজি ফোন ৩ ফোনটিকে ব্যবহারযোগ্য রূপ দেওয়ার জন্য চেষ্টা করেছে আসুস আর সেটা বোঝা যায় এর গঠন প্রনালী দেখে।

আসুস আরওজি ফোন ৩ ক্যামেরার দিক থেকে এক অনাবাদ্য সৃষ্টি। ক্যামেরার দিক থেকে ফোনটিকে যদি তুলনা করা হয়ে থাকে তাহলে আসুস আরওজি ফোন ৩ একটি অসাধারণ স্মার্ট ফোন হিসাবে বলা চলে। ইতিপূর্বে এগ্রেসিভ গেমিং ইন্সপায়ারড লুক বাদ দিয়ে ফোনটি ডিজাইনে গুরুত্ব পেয়েছে মিনিমালিস্টিক লুক এন্ড ডিজাইন।
Asus Rog Phone 3

বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে সেরা রিফ্রেশ রেটযুক্ত ৬.৫৯ ইঞ্চি ডিসপ্লে এবং স্নাপড্রাগন ৮৬৫ থাকছে আসুস আরওজি ফোনটিতে।

একই সাথে ফোনটি চার্জিং এর দিক থেকেও কোন অংশে পিছিয়ে নেই। ফোনটিতে রয়েছে ৬০০ মিলি এম্প এর ব্যাটারী শক্তি যেটা ফোনটিকে অবাধ বাধাহীন ভাবে চালু রাখতে সহায়তা করে এবং গেমি এর জন্য অসাধারণ কাজ করে থাকে। ফোনটির বাজার মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে প্রায় ৭০০ ডলার।

Asus Rog Phone 3।। আসুস আরওজি ফোন ৩ এর ফিচার:

ডিসপ্লে

৬.৫৯ ইঞ্চি এমোলেড
১৪৪ হার্জ রিফ্রেশ রেট

প্রসেসর

স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫

ব্যাক ক্যামেরা

৬৪ মেগাপিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরা

১৩ মেগাপিক্সেল  আলট্টাওয়াইড ক্যামেরা

৫ মেগা পিক্সেল ম্যাক্রো ক্যামেরা


ফ্রন্ট ক্যামেরা

২৪ মেগাপিক্সেল 


র‌্যাম

৮জিবি/১২ জিবি/১৬ জিবি


ইন্টারনাল মেমোরি/রম

১২৮জিবি/২৫৬জিবি/৫১২ জিবি


ব্যাটারি

৬০০০ মিলি এম্প


চার্জিং

কালার

৩০ ওয়ার্ট ফাস্ট ওয়্যারলেস

ব্লাক গ্লারি


মডেল


ASUS_I003D, ZS661KS, I003DD, I003D


০৩য় স্থানে অবস্থানকারী স্মার্টফোনটি :

iPhone 12 Pro।। আইফোন ১২ প্রো:

আইফোন ভক্তরা সব সময় তাকিয়ে থাকে কখন আইফোনের নতুন সিরিজ বাজারে আসবে। আইফোন প্রেমিরা সব সময় আপডেট মডেলের আইফোন খুঁজে থাকে। তার সবসময় নিত্যনতুন সিরিজের ফোন ব্যবহারে উৎসাহিত হয়ে থাকে। আইফোন নিয়ে ইউটিউব, ফেসবুক, টুইটারে এবং প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রায় সময় আপডেট আইফোনের তথ্য দেখা যেয়ে থাকে।

আইফোন প্রেমিদের কথা চিন্তা করে আইফোন কোম্পানি তার অত্যাধুনিক ডিভাইস, অসাধারণ ডিসপ্লে এবং শক্তিশালী চার্জ ক্ষমতা সম্পূর্ন স্মার্ট ফোন আইফোন ১২ প্রো তৈরি করেছে। ফোনটি থেকে বাদ পড়েনি আপডেট কোন স্পেসিফিকেশন।
iPhone 12 Pro

প্রতিবারের ন্যায় এবারও আইফোন ১২ প্রো বিশ্বের সেরা স্মার্টফোনের তালিকার ৩য় স্থানে অবস্থানটি দখল করে নিয়েছে। ফোনটি প্রয়োজনীয় এবং উন্নত প্রযুক্তিত ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে, সে কারণে ফোনটি অনেক শাক্তিশালী ফোন হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। ফোনটির রয়েছে ৬ জিবি র‌্যাম, স্মার্টফোন চিপ, এ ১৪ বায়োনিক চিপ। যার কারণে আইফোন ১২ প্রো কে সেরা স্মার্টফোন তালিকার ৩য় স্থানটি দখল করতে সহায়তা করেছে। এছাড়াও আইফোন ১২ প্রো তে রয়েছে লাইডার সেন্সর, যেটি স্মার্টফোন ভিডিওগ্রাফি ও ফটোগ্রাফিতে একটি নতুন মাত্র যোগ করেছে। ফোনটির ক্যামেরার কথা বলতে গেলে এক কথায় বলা চলে ফোনটির ক্যামেরর পারফরম্যান্স অসাধারণ। সেরা স্মার্ট ফোন তালিকায় আসার পিছনে ফোনটির ক্যামেরাটি একটি প্লাস পয়েন্ট। বর্তমানে ফোনটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে প্রায় ৯৯৯ ডলারের মত।

iPhone 12 Pro।। আইফোন ১২ প্রো এর ফিচার:

ডিসপ্লে

৬.১ ইঞ্চি সুপার রেটিনা ওলেড


প্রসেসর

এ ১৪ বায়োনিক

ব্যাক ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল  আলট্টাওয়াইড ক্যামেরা

১২ মেগা পিক্সেল টেলিফটো ক্যামেরা

লাইডার সেন্সর


ফ্রন্ট ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল 


র‌্যাম

৬ জিবি


ইন্টারনাল মেমোরি/রম

১২৮জিবি/২৫৬জিবি/৫১২ জিবি


ব্যাটারি

২৮১৫ মিলি এম্প


চার্জিং

কালার

২০ ওয়ার্ট ফাস্ট চার্জিং/ ১৫ ওয়ার্ট ওয়্যারলেস

সিলভার, গ্রাফিটি, গোল্ড, পেসিফিক ব্ল


মডেল


A2407, A2341, A2406, A2408, iPhone13,3


০২য় স্থানে অবস্থানকারী স্মার্টফোনটি :

Samsung Galaxy Note 20 Ultra 5G।। স্যমসাং গ্যালাক্সি নোট ২০ আলট্রা ৫জি :

বহু প্রতীক্ষার পর দক্ষিণ কোরিয়ান কোম্পানী স্যামসাং বাজারে আনলো স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ২০ আলট্রা ৫জি ফোনটি। এই ফোনটি বিশ্বের সেরা স্মার্ট ফোন তালিকায় ২য় স্থানটি অধিকার করে নিয়েছে। নামে ও গুনে স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ২০ আলট্রা ৫জি ফোনটি একটি অসাধারণ স্মার্ট ফোন। এই ফোনটির লুকিং ও অনেক সুন্দর।

Samsung Galaxy Note 20 Ultra 5G

স্যামসাং গ্যালাক্সি ফোনটিতে যা থাকছে : ৬.৯ ইঞ্চির অ্যামোলেড ডিসপ্লে, ১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট। স্নাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস এবং ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ম্যাডনেস।

Samsung Galaxy Note 20 Ultra 5G।। স্যমসাং গ্যালাক্সি নোট ২০ আলট্রা ৫জি

এর ফিচার:

ডিসপ্লে

৬.৯ ইঞ্চি সুপার অ্যামোলেড
১২ হার্জ রিফ্রেশ রেট

প্রসেসর

স্নাপড্রাগন ৮৬৫+ / এক্সিনোস ৯৯০

ব্যাক ক্যামেরা

১০৮ মেগাপিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল  আলট্টাওয়াইড ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল পেরিস্কোপ টেলিফটো ক্যামেরা


ফ্রন্ট ক্যামেরা

১০ মেগাপিক্সেল 


র‌্যাম

১২ জিবি


ইন্টারনাল মেমোরি/রম

১২৮জিবি/২৫৬জিবি/৫১২ জিবি


ব্যাটারি

৪৫০০ মিলি এম্প


চার্জিং

কালার

২০ ওয়ার্ট ফাস্ট চার্জিং/ ১৫ ওয়ার্ট ওয়্যারলেস

মিস্টিক ব্রোঞ্জ, মিস্টিক ব্ল্যাক, মিস্টিক হোয়াইট


মডেল


নোট ২০ আল্ট্রা ৫ জি


০১ম স্থানে অবস্থানকারী স্মার্টফোনটি :

iPhone 12 Pro Max।। আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স:

বিশ্বের সেরা স্মার্ট ফোনের তালিকায় অ্যাপেল আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স ফোনটি শীর্ষ স্থানে অবস্থান করছে। বর্তমান যুগে অ্যাপেলের তরফ থেকে আসা সর্বশ্রেষ্ঠ স্মার্টফোন এটি। আইফোন ১২ প্রো এর আপগ্রেড হলো আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স।

iPhone 12 Pro Max

আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স ফোনটিতে রয়েছে সব থেকে বড় ডিসপ্লে ৬.৭ ইঞ্চি, ৩৬৮৭ মিলি এম্প ব্যাটারী শক্তি। ফোনটি সবগুলো সেক্টর এমন ভবে তৈরি করা হয়েছে যে ফোন কম্পিউটার অপেক্ষা শ্রেষ্ঠত্বে দাবীদার। সে জন্য অ্যাপেলের আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স ফোনটি সর্ব শ্রেষ্ঠ স্মার্ট ফোন হিসাবে তালিকার শীর্ষ স্থানটিতে অবস্থান করছে।

iPhone 12 Pro Max।। আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স এর ফিচার:

ডিসপ্লে

৬.৭ ইঞ্চি সুপার রেটিনা


প্রসেসর

এ ১৪ বায়োনিক

ব্যাক ক্যামেরা

১২  মেগাপিক্সেল ওয়াইড ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল  আলট্টাওয়াইড ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল  টেলিফটো ক্যামেরা

লাইডার সেন্সর


ফ্রন্ট ক্যামেরা

১২ মেগাপিক্সেল 


র‌্যাম

০৬ জিবি


ইন্টারনাল মেমোরি/রম

১২৮জিবি/২৫৬জিবি/৫১২ জিবি


ব্যাটারি

৩৬৮৭ মিলি এম্প


চার্জিং

কালার

২০ ওয়ার্ট ফাস্ট চার্জিং/ ১৫ ওয়ার্ট ওয়্যারলেস

সিলভার, গ্রাফিটি, গোল্ড, পেসিফিক ব্ল, 


মডেল


A2411, A2342, A2410, A2412, iPhone13,4


চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক চীনে তৈরিকৃত অসংখ্য স্মার্ট ফোন গুলোর ভিতরে নামি দামি কিছু ফোন সম্পর্কে :

চীনে বহুধরনের ফোন নির্মিত হয়ে থাকে। বর্তমানে চীনের তৈরিকৃত ফোন গুলো ছেয়ে গেছে প্রায় গোটা বিশ্বে। চীনে অনেক নামী-দামী ফোন থেকে শুরু করে বিভিন্ন ক্যাটাগরীর ফোনগুলো বাজারে পাওয়া যায়। এর মধ্যে চিনের নিজস্ব কিছু ব্র্যান্ড রয়েছে সে সব ব্র্যান্ডের ফোনগুলো নিখুত এবং গুনগত মানদিয়ে প্রতিনিয়ত তীব্র প্রতিযোগীতা চালিয়ে যাচ্ছে। এদের দাম মোটামুটি একটু বেশি।

চলুন দেখে নেওয়া যাক কিছু চাইনিজ ব্রান্ডের ফোন যে গুলোর দাম একটু বেশি কিন্তু বাংলাদেশের বাজার ফোনগুলো তার উপযুক্ত দাম পাইনি। কিন্তু ভারতে ফোনগুলোর মূল্য দেওয়া হয়েছে।
  • জিওনি ম্যারাথন এম ৫ প্লাস (

    Gionee Marathon M5 Plus)

     :
     
চিনের বিখ্যান প্রযুক্তি নির্মাতা জিওনি বাজারে আনলো জিওনি ম্যারাথন এম ৫ প্লাস ফোনটি। কলকাতার একটি ফাইভ স্টার হোটেলে জিওনি ম্যারাথন ফোনটি লঞ্চ করে। এই ফোনটির প্রধান আকর্ষণ ৫০২০ এমএইচ ব্যাটারী। ফোনটিতে রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ললিপপ ৫.১। এটির ডিসপ্লে ফুল এইচডি, ৬ ইঞ্চি। জিওনি ম্যারাথন এম ৫ প্লাস ফোনে রয়েছে ৩ জিবি র‌্যাম, ১৩ মেগাপিক্সেল ব্যাক ক্যামেরা, ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। ফোনটির ইন্টারন্যাল মেমোরি রয়েছে ৬৪ জিবির এবং মিডিয়াটেক ৬৭৫৩ সিপিইউ। ফোনটির বাজার মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে প্রায় ৩৫ হাজার ৮৪৫ টাকা।

Gionee Marathon M5 Plus

  • অপপো এফ ১ প্লাস (OPPO F1 Plus) : 
অপপো কোম্পানি বিগত এপ্রিলে চীনের বাজারে এফ ১ সিরিজের ফোনটি আনার পর বেশ সাড়া ফেলছে স্মার্ট ফোনটি। অপপো এফ ১ প্লাস ফোনটিতে রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেল ব্যাক ক্যামেরা, ফুল এইচডি ৫.৫ ইঞ্চ ডিসপ্লে, ৪ জিবি র‌্যাম, ৬৪ জিবি ইন্টারন্যাল মেমোরি, ২৮৫০এমএএইচ ব্যাটারী শক্তি এবং অক্টো-কোর মিডিয়াটেক হেলিো পি ১০ প্রসেসর। ফোনটির বাজার মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে প্রায় ৩১,৪৪০/= টাকা।
OPPO F1 Plus
  • জিয়াওমি এম আই ৫ (Mi 5) : 
জিওয়ামি এমআই ৫ ফোনটিতে রয়েছে ৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি ডিসপ্লে, ৩ জিবি র‌্যাম, ৩২ জিবি ইন্টারন্যাল মেমোরি, প্রসেসর কোয়াড-কোর কোয়ালকম স্নাপড্রাগন ৮২০, ১৬ মেগাপিক্সেল সনি আইএমএক্স ২৯৮ ক্যামেরা। ফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরা ৪ মেগাপিক্সেল। জিওয়ামি এমআই ৫ ফোনটি প্রথম ভারতের বাজারে লক্ষ্য করা যায়। এটির মূল্য নির্ধারন করা হয়েছিল ভারতের বাজারে ২৪,৯৯৯ রুপি। ফোনটি বাংলাদেশের বাজারে আসলেও মেলেনি এর কোন উপযুক্ত মূল্য।
Mi 5
  • ভিভো ভি ৩ ম্যাক্স (Vivo V3 Max) : 
ভিভো ভি ৩ ফোনটিতে রয়েছে ৩ জিবি র‌্যাম, ৩২ জিবি ইন্টারন্যাল মেমোরি, ব্যাক ক্যামেরা ১৩ মেগা পিক্সেল এবং ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল। প্রসেসর স্নাপড্রাগন ৬১৬, ৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি ডিসপ্লে । ফোনটির ভারতে বাজার মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল ২৩,৯৮০ রুপি।    

Vivo V3 Max
  • কুলপ্যাড ম্যাক্স (Coolpad Max) : 
চীনের তৈরিকৃত কুলপ্যাড ম্যাক্স ফোনটি ভারতের বাজারে আলোড়ন সৃষ্টি করে। এই স্মার্ট ফোনটিতে রয়েছে প্রসেসর অক্টা-কোর কোয়ালকম স্নাপড্রাগন ৬১৭ সক, ৪ জিবি র‌্যাম, ইন্টারন্যাল মেমোরি ৬৪ জিবি, ব্যাক ক্যামেরা ১৩ মেগাপিক্সেল, ফোনটি ৫.৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি ডিসপ্লে যুক্ত। এটির ব্যাটারী শক্তি রয়েছে ২৮০০ এমএএইচ। কুলপ্যাড ম্যাক্স ফোনটির ভারতে বাজার মূল্য নির্ধারণ করা হয় ২৪,৯৯৯ রুপি।

চীনের বাজারে ১নং নম্বর মোবাইল ব্রান্ড কোনটি ? চলুন দেখে নেওয়া যাক : 

চীনের স্মার্ট ফোন বাজারে যে ব্রান্ডটি শীর্ষ স্থানে অবস্থান করছে সেটি হলো অপ্পো। অপ্পো কোম্পানিটি চীনের বাজারে ২০১৬ সালে ৭কোটি ৮৪ লাখ ডিভাইস বিক্রি করেছে। বর্তমানে গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইডিসি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানা যায় অপ্পো কোম্পানী যে স্মার্ট ফোন বিক্রি করেছে তা চীনের মোট স্মার্টফোন বিক্রির প্রায় ১৬.৮ শতাংশ।

প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে আরো জনা যায়, চীনের সেরা ১ম, ২য় এবং ৩য় স্মার্ট ফোন তালিকায় জায়গা পায়নি অ্যাপল ও শাওমি। হুয়াই এবং ভিভো কোম্পানীর স্মার্টফোন জায়গা করে নিয়েছে চীনের সেরা স্মার্ট ফোন তালিকার ২য় ও ৩য় স্থান। বিগত বছরে চীনের বাজারে ব্রান্ড দু'টির শেয়ারের পরিমান ছিল ১৬.৪ ও ১৪.৮।

চীনের বাজারে হুয়াই ব্রান্ড তার ৭ কোটি ৬৬ লাখ ডিভাইস বিক্রয় করে। অপর দিকে ভিভো কোম্পানী বিক্রি করে ৬ কোটি ৯২ লাখ ডিভাইস। চীনের স্মার্ট ফোন বাজারে প্রায় অর্ধেক রাজত্ব করছে অপ্পো, হুয়াওয়ে এবং ভিভো। অ্যাপল ও শাোমি সেরা ৫টি স্মার্ট ফোন তালিকায় উঠে এসেছে। ব্রান্ড দু'টির ডিভাইস বিক্রয়ের পরিমাণ।
আরও জানুনঃ
প্রতিবেদনে আরও জানা যায় যে, ২০১৬ সালের শেষের দিক থেকে স্মার্ট ফোনের ব্যবহার খুব দ্রুত গতিতে বেড়ে চলেছে। প্রতিনিয়ত নিত্য নতুন মোবাইল এ্যাপস আপডেট হচ্ছে। আর এর জন্য প্রয়োজন হচ্ছে আপডেট ডিভািইসের স্মাটফোনের। ফলে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর প্রতিনিয়ত খুজে চলেছে আপডেট ডিভাইসের স্মাটফোনের এবং ব্যবহারকারীরা সবসময় আপডেট স্মার্ট ফোনগুলো ব্যবহার করে আসছে। আর সে দিক থেকে অপ্পো এবং হুয়াওয়ে ব্রান্ডের ফোনগুলো চীন দেশের বিভিন্ন প্রান্তিক শহরগুলোতে বেশি পরিমানে ব্যবহৃত হচ্ছে।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

as