অটো পাশের শিক্ষার্থীরা রেজিষ্ট্রশন ফি ফেরত পাচ্ছে কবে?

করোনা মহামারীর কারণে ছাত্র-ছাত্রীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকির কথা বিবেচনা করে এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেওয়া হয়নি। তাদের জেএসসি-জেডিসির ফলাফলের ২৫% এবং এসএসসির ফলাফলের ৭৫% শতাংশ বিবেচনায় নিয়ে এবারের উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফল ঘোষনা করা হয়েছে। যেখানে দেশ জুড়ে এইচ এস সি পরিক্ষায় নিবন্ধন করেছিলো ১৩ লাখ ৬৭ হাজার ৩৭৭ জন শিক্ষার্থী যাদের সবাই পাশ করেছে।

অটো পাশের শিক্ষার্থীরা রেজিষ্ট্রশন ফি ফেরত পাচ্ছে কবে

আজ সকালে ৩০/০১/২০২১ রোজ শনিবার ফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী ডঃ দীপু মনি ঢাকা মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে  শিক্ষামন্ত্রী অনলাইনে যুক্ত হয়ে ফলাফল প্রকাশ করেন ।

এভাবে অটো পাশের মাধ্যমে পরিক্ষার্থীদের ফলাফলের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী বলেন অনেকেই এটা নিয়ে কথা বলছেন। তিনি বলেন এটা নিয়ে খুব বেশি কথা বলা বা এটা নিয়ে বেশি তিক্ততার সৃষ্টি করা উচিত না!

মনে রাখতে হবে ছোট ছেলেমেয়েরা তাদের জীবনের দিকে তাকাতে হবে তারা যেন কোনভাবেই হতাশাগ্রস্ত না হয়ে পড়ে। দীর্ঘদিন থেকে তারা স্কুল কলেজে যেতে পারছেনা বিশ্ববিদ্যালয় যেতে পারছে না এটা তাদের জীবনে বিরাট একটা বাধা তাই তাদের এই ফলাফলে করো বিরূপ মন্তব্য করা উচিত নয়।

শিক্ষামন্ত্রী ডঃ দীপু মনি বলেন এগারোটি শিক্ষা বোর্ডের ১৩ লাখ ৬৫ হাজার ৭৮৯ জন শিক্ষার্থীর এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনা মহামারীর কারণে ছাত্র-ছাত্রীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকির কথা বিবেচনা করে ১৭ ই মার্চ ২০২০ থেকে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়। তার আগে এসএসসি পরীক্ষা হয়ে গেলেও আটকা পড়ে যায় এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা।

পরে ডক্টর দীপু মনি আরো বলেন ,এইবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় শিক্ষার্থীরা যে অর্থ জমা দিয়েছিলো পরীক্ষা না হওয়াযর কারনে শিক্ষার্থীরা সেই অর্থের কিছু অংশ খুব শিঘ্রই ফেরত দেওয়া হবে  বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডক্টর দীপু মনি।

মাসের পর মাস অপেক্ষা করার পরেও পরীক্ষা নেওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি না হওয়ার কারনে জে এস সি এবং এসএসসি পরীক্ষার গড় করে এইচএসসি ফলাফল প্রকাশ করা হলো। 

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের পর এবারই প্রথম করোনা মহামারীর কারণে পরীক্ষা ছাড়াই সকল শিক্ষার্থীকে পাস করানো হলো। সেই হারে এবার জিপিএ ৫ পাওয়ার রেকর্ডও অনকে বেশি। সারাদেশে  জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ লক্ষ ৬০ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী। 

এবারের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে জিপিএ ৫ এর ক্ষেত্রে মেয়েরা সর্বক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছে ছেলেদের তুলনায়। শিক্ষার্থীদের ক্লাসে পড়ানোর বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন করেনা ভাইরাস মোকাবেলায় আমরা যথেষ্ট সচেতন এবং এই মহামারী যেহেতু বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে গেছে তাই মানুষ যখন এটা থেকে মুক্তি পাবে তখন আবার আমরা যথা নিয়মে ক্লাস করতে পারব এবং শিক্ষার্থীর বিষয় তিনি আরো বলেন যারা প্রমোশন পাবে তারা আগামীতে পড়াশোনা শুরু করতে পারবে এবং পরবর্তী পরীক্ষা তাদের ভাগ্য নির্ভর করছে।

অনেকে সেন্টিমেন্টাল হচ্ছেন, কথা বলছেন পরীক্ষা নিতে। কিন্তু এগুলো করতে গিয়ে যদি কেউ সংক্রমিত হয়, তাহলে তার দায় দায়িত্ব কে নেবে? যারা সমালোচনা করছেন এই পদ্ধতিতে রেজাল্ট দেওয়ার কারণে, তারা নেবেন দায়িত্ব? নিশ্চয়ই তারা নেবেন না। তখন তারা নতুন করে আবার সমালোচনা শুরু করবেন। 

এটাই আমাদের সবচেয়ে দুর্ভাগ্য যে কিছু লোক থাকেই,যারা কিছু করতে গেলেই তাতেই একটা খুঁত বের করে বসে। ফলাফলটা কি হবে সেটা তারা চিন্তাও করেন না?

ইতিমধ্যে ভ্যাকসিন বের হয়েছে। যখন থেকেই শুরু হয়েছে গবেষণা তখন থেকেই আগাম টাকা পয়সা দিয়ে আমরা বুক করে রেখেছিলাম। যখনই এটা আবিষ্কার হবে, যখনই এটা ব্যবহার করার অনুমতি পাওয়া যাবে সাথে সাথে আমরা যেন দিতে পারি।

আপনারা জানেন যে আমরা করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করেছি। সেখানে আমি এরই মধ্যে নির্দেশ দিয়েছি, আমাদের যারা শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী আছেন, তাদেরও এই ভ্যাকসিনটা যাতে দ্রুত দেওয়া হয়। 

তাছাড়া এটা সবচেয়ে বেশি দরকার, সবার স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে চলা, করোনা মোকাবেলায় যা যা ব্যবস্থা আছে গ্রহণ করা। সেই সাথে ভ্যাকসিন তো সবাই পেয়েই যাবেন, তার জন্য সবার মানসিকভাবে তৈরি থাকা। 

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারলে আমরা খুব দ্রুতই স্কুল খুলে দিতে পারব। করোনাভাইরাস আমরা যেভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখছি, সবাই যদি আরেকটু (স্বাস্থ্যবিধি) মেনে চলি তাহলে আমরা এটা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারব এবং খুব দ্রুতই আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দিতে পারব। আমরা আশা করছি, হয়ত আগামী মার্চ-এপ্রিলের মধ্যেই স্কুল প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার। তবে আমরা মার্চ মাসটাকেই বেশি গুরুত্ব দেবো ।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url